MysmsBD.ComLogin Sign Up

প্রত্যেক পুরুষের বাথরুমে যে জিনিসগুলো না থাকলেই নয়

In লাইফ স্টাইল - May 21 at 3:23pm
প্রত্যেক পুরুষের বাথরুমে যে জিনিসগুলো না থাকলেই নয়

অনেকেই তেমন গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন না। কিন্তু দৃষ্টিনন্দন বাথরুম ঘরের পরিবেশকে বদলে দিতে পারে। এখান পুরুষদের জন্যে বাথরুমে কি কি প্রয়োজন তার তালিকা দিয়েছে বিশেষজ্ঞরা। এদের ব্যবহারে বিশেষ এই ঘরে বিচরণ বেশ আরামদায়ক হয়ে উঠবে।

১. কোমল ও দামি তোয়ালে অতি জরুরি। আপনি এবং মেহমানরা এগুলো যেন ব্যবহার করতে পারেন। গুণগত মানের জন্যে কিছুটা খরচ হবে বৈকি।

২. গোসল শেষে ভেজা পা রাখার জন্যে নরম একটা জায়গা দরকার। একটি ফোম বাথম্যাট দারুণ জিনিস হতে পারে। এতে দাঁড়ালে পানি ঝরবে এতে।

৩. ভালো মানের শাওয়ারহেড বেশ জরুরি। সকালের গোসলটা দারুণ হবে। আপনার সজীবতা ফিরিয়ে দিতে পারে ভালো মানের একটা শাওয়ারহেড।

৪. একটি আয়না থাকবে যার পেছনে কিছুটা ব্যয় করতে হবে। শেভিং ছাড়াও অন্যান্য কাজে ব্যবহার করতে পারবেন। এটি এমন মানের হওয়া চাই যা ঘোলাটে হয়ে উঠবে না।

৫. ওয়াটারপ্রুফ ব্লটুথ স্পিকার গোসলের কাজটাকে আরো আনন্দদায়ক করে দেবে। ছোট এই স্পিকারটি বাথরুমে ভিন্ন মাত্রা দিতে পারে।

৬. বাথটাবে কিছুটা গোপনীয়তা আনতে একটা পর্দা দিয়ে ঢেকে দিতে পারেন। রেস্টোরেশন হার্ডওয়্যার পর্দাগুলো বেশ মানানসই হতে পারে।

৭. গোসলের পর একটা বাথরব বেশ আরাম দিতে পারে। বিভিন্ন স্টাইল, আকার ও রংয়ে পাওয়া যায়। পছন্দমতো বেছে নিতে পারেন।

৮. অধিকাংশ বাথরুমেই স্টোরেজ ব্যবস্থা থাকে না। শ্যাম্পু, সাবান, পেস্ট এবং অন্যান্য প্রসাধন রাখতে একটা ছোট স্টোরেজের ব্যবহার করতে পারেন।

৯. একটা টাওয়েল ওয়ার্মার কেনাটা বিলাসিতা বলে মনে হতে পারে। কিন্তু একবার ব্যবহার করলে এর ভক্ত বনে যাবেন।

১০. হিটেড টয়লেট সিট কিনতে পারেন। এটাকেও বাড়তি বলে মনে করবেন না। আরামদায়ক জীবনের অংশ হয়ে উঠবে।

১১. কিছু অ্যাকসেরসরিজ প্রয়োজন হবে। দস্তার তৈরি জিনিসপত্র বেশ মানাসই হবে। এগুলোতে মরচে পড়বে না। একটু ভালো মানের কিনতে পারে। টিস্যু, ব্রাশ বা হ্যান্ডওয়াশ রাখাতকে কাজে লাগে।

১২. সাবানের ব্যবহারে মিতব্যয়ী হতে ও জীবাণুমুক্ত থাকতে অটোমেটিক সোপ ডিসপেন্সার বেশ কাজে দেবে।

১৩. বিদ্যুৎ চলে গেলে বা সুন্দর বাথরুমে ক্লাসিক রূপের জন্যে বাথরুম ক্যান্ডেল বেশ জনপ্রিয়। একটি ভালো জায়গা দেখে সুগন্ধি মোমবাতি কিনে রাখতে পারেন।

১৪. শেভিংয়ের জন্যে দারুণ একটি জিনিস স্ট্রেইটেজ। একটি দন্ডের দুই পাশে রেজর এবং শেভিং ব্রাশ রাখতে পারবেন।

১৫. বাথরুমটি একটু বড় আকারের হলে এবং দেওয়ালে জায়গা থাকলে একটি চিত্রকর্ম রাখতে পারেন। তবে তা বাথরুম ফিটিংসের সঙ্গে মানানসই হতে হবে।

১৬. মেহমানরা রাথরুমে প্রবেশ করে কাজ শেষে বেরিয়ে আসবেন। এর মাঝে তাদের একটু মজার ব্যবস্থা করতে পারেন বিশেষ কোনো কার্টুনচিত্র দেয়ালে জুড়ে দিয়ে।

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Posts 4064
Post Views 315