MysmsBD.ComLogin Sign Up

ইউরোর দল পরিচিতি : ক্রোয়েশিয়া

In ফুটবল দুনিয়া - May 18 at 12:14pm
ইউরোর দল পরিচিতি : ক্রোয়েশিয়া

বর্ণ বৈষম্য, উত্তম-অধম, উপর-নিচ সব ভেদাভেদ ভুলে ইউরোপিয়ানরা একাত্ম হচ্ছেন ফুটবলের রঙে। ১০ জুন পর্দা উঠবে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ তথা ইউরো-২০১৬ এর। ইউরোর ১৫তম আসরের আয়োজক ইউরোপের অন্যতম সমৃদ্ধশালী দেশ ফ্রান্স। অবশ্য তারা দুই-দুইবারের চ্যাম্পিয়নও।

ফ্রান্সের বিভিন্ন শহরের ১০টি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে এবারের এই আসরের সবগুলো ম্যাচ। স্টেডিয়ামগুলো হল- সেইন্ট ডেনিস, মার্শেই, লিও, লিল, প্যারিস, বোর্ডেয়াক্স, সেইন্ট ইতিনি, নিস, লেন্স ও তৌলুস। সেইন্ট ডেনিস স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ও সমাপনী ম্যাচ।

১৯৯৬ সাল থেকে ইউরোতে ১৬টি করে দল অংশ নিলেও এবারই প্রথম খেলতে যাচ্ছে ২৪টি দল। তাদেরকে ৬টি গ্রুপে বিভক্ত করে অনুষ্ঠিত হবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা। সেখানে গ্রুপ ‘এ’ তে রয়েছে ফ্রান্স, রোমানিয়া, আলবেনিয়া ও সুইজারল্যান্ড। গ্রুপ ‘বি’ তে রয়েছে ইংল্যান্ড, রাশিয়া, ওয়েলস ও স্লোভাকিয়া। গ্রুপ ‘সি’ তে রয়েছে জার্মানি, ইউক্রেন, পোল্যান্ড ও নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড । গ্রুপ ‘ডি’ তে রয়েছে স্পেন, চেক প্রজাতন্ত্র, তুরস্ক ও ক্রোয়েশিয়া । গ্রুপ ‘ই’ তে রয়েছে বেলজিয়াম, ইতালি, আয়ারল্যান্ড ও সুইডেন । গ্রুপ ‘এফ’ এ রয়েছে পর্তুগাল, আইসল্যান্ড, অস্ট্রিয়া ও হাঙ্গেরি।

ইউরোপের শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে মাঠে নামবে সেরা ২৪টি দেশ। তার আগে MySmsBD.Com এর পাঠকদের জন্য ইউরো ২০১৬ তে অংশ নেওয়ার দলগুলোর পরিচিতি পর্ব তুলে ধরা হবে। সেই ধারাবাহিকতার সূচনায় আজকের আলোচ্য দল ক্রোয়েশিয়া।

★ ইউরোপের এই দলটির আদ্যোপান্ত MySmsBD.Com এর পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল....

যেভাবে ইউরোর চূড়ান্তপর্বে ক্রোয়েশিয়া :
অনেকটা প্রত্যাশিতভাবেই ইউরো ২০১৬ বাছাই পর্বের বাঁধা টপকে চূড়ান্তপর্বে জায়গা করে নেয় ক্রোয়েশিয়া। ১০ ম্যাচে ৬ জয়, ৩ ড্র ও ১ হারে ‘এইচ’ গ্রুপ থেকে ইতালির সঙ্গী হয়ে ইউরোতে খেলবে লুকা মদ্রিচের ক্রোয়েশিয়া। এটি তাদের টানা চতুর্থ ইউরো।

ইউরোতে ক্রোয়েশিয়ার অতীত পারফরম্যান্স :
১৯৯১ সালে যুগোস্লাভিয়া থেকে আলাদা হবার পর ১৯৯৬ সাল থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত কেবল ইউরোর ২০০০ আসরেই বাছাইপর্বের বাধা পেরুতে ব্যর্থ হয় ক্রোয়েশিয়া। ১৯৯৬ আসরে সেবার প্রথম অংশগ্রহণ করেই বাজিমাত করে ডেভর সুকার এর ক্রোয়েশিয়া। তার তিন গোলেই কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নেয় নবাগত ক্রোয়েশিয়া। এরপর ২০০৮ সালে আরো একবার শেষ আটে খেলেছে ক্রোয়েশিয়া। এখনো পর্যন্ত সেমিফাইনালে না খেলা ক্রোয়েশিয়ার এটিই ইউরোতে সর্বোচ্চ পারফরম্যান্স।

ক্রোয়েশিয়ার শক্তিশালী দিক :
বর্তমান ক্রোয়েশিয়া দলের সবচেয়ে শক্তিশালী দিক লুকা মদ্রিচ, ইভান রাকিটিচদের মত বিশ্ব মাতানো মিডফিল্ডার এবং মাতেও কোভাচিচের মত তরুণ প্রতিভার সমন্বয়ে গড়া মধ্যমাঠ। তাছাড়া ইভান পেরিসিচ, মারিও মানজুকিচদের মত পরীক্ষিতদের নিয়ে শক্তিশালি আক্রমণভাগ নিয়ে যেকোন মুহুর্তে খেলা ঘুরিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে ক্রোয়েশিয়া।

ক্রোয়েশিয়ার দূর্বল দিক :
অপেক্ষাকৃত নতুনদের নিয়ে গড়া রক্ষণভাগই দুঃশ্চিন্তার কারণ হতে পারে ক্রোয়েশিয়ার। কোচ ক্যাচিচের সাথে দ্বন্দ্বের জের ধরে লিভারপুলে খেলা অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার দেজান লভরেন ছিটকে পড়ায় রক্ষণভাগের ভারসাম্য কমে গেছে অনেকটাই।

ক্রোয়েশিয়ার বাজির ঘোড়া :
লুকা মদ্রিচ এবং ইভান রাকিটিচ যথাক্রমে রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনার মাঝমাঠের প্রাণভোমরা হলেও জাতীয় দলের সাম্প্রতিক উন্নতিতে শেষোক্ত জনের অবদানই বেশি। ছোট ছোট পাসের ছন্দের সাথে সাথে দুর্দান্ত সব ডিফেন্স চেরা আ্যাসিস্ট, সারামাঠ দৌড়িয়ে খেলার অসাধারণ স্ট্যামিনা আর খেলাটাকে ঠিকমত বুঝতে পারার দক্ষতায় ইভান রাকিটিচই হতে পারেন ক্রোয়েশিয়ার বাজির ঘোড়া। তবে ইদানিং বেশ জোরেশোরে আসছে বার্সেলোনার একাডেমি `লা মাসিয়া` তে খেলা আক্রমণভাগের খেলোয়াড় আ্যালেন হ্যালিলোভিচের নামও। দূর্দান্ত ড্রিবলিং এ পারদর্শী এই তরুণ এরই মধ্যে ইউরোপিয়ান গনমাধ্যমে আখ্যা পেয়েছেন `নতুন মেসি নামে`।

এক নজরে ইউরোতে ক্রোয়েশিয়া :
এর আগে মোট ইউরো খেলছে : ৪ বার
শিরোপা : নেই
বর্তমান ফিফা র‍্যাংকিং : ২৩
বর্তমান কোচ : আন্তে ক্যাচিচ
ইউরো ২০১৬ তে গ্রুপ : ডি
গ্রুপ পর্বের প্রতিপক্ষ : স্পেন, চেক রিপাবলিক ও তুরস্ক
ইউরোতে সেরা পারফরম্যান্স : ১৯৯৬ ও ২০০৮ সালে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলা
সাবেক তারকা ফুটবলার : ডেভর সুকার, রবার্ট প্রসিনেকি, ভনিমির বোবান।

Googleplus Pint
Anik Sutradhar
Posts 6704
Post Views 305