MysmsBD.ComLogin Sign Up

Search Unlimited Music, Videos And Download Free @ Tube Downloader

বাতি জ্বলতেই অটোগ্রাফ-সেলফি

In সিনেমা জগৎ - May 14 at 7:19pm
বাতি জ্বলতেই অটোগ্রাফ-সেলফি

ভয় ছিল। প্রথম ছবি কেমন হয়! কীভাবে নেবেন দর্শকেরা। যে ছবির শুটিং হয়েছে তিন বছর ধরে, সেই ছবি নিয়ে কোনো আশা থাকে?

মডেল হিসেবে বেশ কিছুদিন কাজ করার পর গতকাল থেকে বড় পর্দার নায়িকা পিয়া বিপাশা। শুক্রবার মুক্তি পেয়েছে তাঁর প্রথম ছবি ‘রুদ্র’। শহর ছেয়ে গেছে সে ছবির পোস্টারে।

বৃহস্পতিবার মুঠোফোনে পিয়া জানান, ছবিটি দেখতে হলে যাবেন না তিনি। কিন্তু শুক্রবার সন্ধ্যায় ফোন করে জানালেন এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতার ব্যতিক্রম গল্প। নিজের ছবি দেখার অভিজ্ঞতার গল্পটা সরাসরি জানা যাক তাঁর কাছ থেকেই।

পরিচালক, নায়ক কিংবা বন্ধুদের কাউকে না নিয়ে চুপি চুপি হলে যান পিয়া। সঙ্গে কেবল মা। শুক্রবার বিকেলের প্রদর্শনীতে মা-মেয়ে গিয়ে বসেন সিনেপ্লেক্সের অন্ধকার মিলনায়তনের একেবারে পেছনে, যেখানে কোনো দর্শক ছিল না। ছবি শুরুর পর নিজেকে পর্দায় দেখে কেমন লেগেছে, সেটা ভাষায় বোঝাতে পারেননি তিনি।

তবে মায়ের দিকে তাকিয়ে দেখেন—পর্দার আলো প্রতিফলিত হচ্ছিল মায়ের চোখের জলে। মা বলেছেন, ‘আগে বুঝিনি তোমাকে দেখতে এত ভালো লাগবে। মায়ের এই প্রশংসায় হল থেকে বেরিয়েই মাকে একটি আংটি উপহার দেন পিয়া।
ছবি শেষে মিলনায়তনের বাতি জ্বলতেই দেখেন পুরো হল দর্শকপূর্ণ।

হঠাৎ করে দর্শকেরাও তাঁকে চিনে ফেললে ভীষণ অস্বস্তি হচ্ছিল পিয়ার। কেউ কেউ এগিয়ে এসে অভিনন্দন জানাতে শুরু করে। কেউ চায় অটোগ্রাফ, কেউ তোলে সেলফি। অথচ শুরুতে হলেই আসতে চাননি পিয়া। তিনি বলেন, ‘ভুল হয়ে গেল। আগে থেকে একটু জনসংযোগ করা দরকার ছিল। পরেরবার আর এ ভুল করব না।’
আজ শনিবার আবারও সিনেপ্লেক্সে গেছেন পিয়া। সঙ্গে এবার অনেক মানুষ। আত্মীয় বন্ধু-বান্ধব মিলে দেখছেন ‘রুদ্র’ ছবিটি।

ছবিটি পরিচালনা করেছেন সৈয়দ জাফর ইমামী। এ ছবিতে পিয়া বিপাশার নায়ক এবিএম সুমন।

Googleplus Pint
Md Sobuj Ahmed
Posts 217
Post Views 269