MysmsBD.ComLogin Sign Up

Search Unlimited Music, Videos And Download Free @ Tube Downloader

সন্তান কি সাফল্যের চাবিকাঠি? ৯ বিষয় জেনে নিন

In লাইফ স্টাইল - May 09 at 9:27pm
সন্তান কি সাফল্যের চাবিকাঠি? ৯ বিষয় জেনে নিন

সন্তান গ্রহণ অনেকের জীবনেই বহু নতুন সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করে। তবে এ বিষয়টি সত্যিই কি জীবনের সাফল্যের অনুপ্রেরণা যোগায়? এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার।

১. মায়েরা কর্মক্ষেত্রে সমস্যায় পড়েন

সন্তান ধারণের পর থেকেই মায়েদের ক্যারিয়ারে নানা সমস্যা সৃষ্টি হয়। এ কারণে সন্তান তাদের পেশাগত জীবনে উন্নতি নয় বরং পেছনে নিয়ে যেতে পারে। অধিকাংশ অফিসেই মায়েদের কাজের ক্ষেত্রে খুব একটা উপযোগী বলে মনে করা হয় না। ফলে তাদের পেশাগত উন্নতি কমে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

২. বাবাদের অর্থ উপার্জন বাড়ে

মায়েদের অবস্থার প্রায় বিপরীত পরিস্থিতি দেখা যায় অধিকাংশ অফিসে। সন্তান হওয়ার পর মায়েদের যেমন বেতন কমে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে তার ঠিক বিপরীতভাবে বাবাদের বেতন বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। বহু কর্মক্ষেতেই দেখা গেছে সন্তান নেওয়ার পর বাবাদের কর্মতৎপরতা বেড়ে গেছে এবং কর্মস্থলে সহজেই উন্নতি হচ্ছে।

৩. পিতামাতার উৎপাদনশীলতা বাড়ে

অনেকেরই ধারণা যে, সন্তান গ্রহণের পর পিতামাতার কর্মক্ষেত্রে মনোযোগ কমে যায়। যদিও বাস্তবে বিষয়টি এর বিপরীত। সন্তান গ্রহণের পর পিতা ও মাতা উভয়েরই কর্মক্ষেত্রে উৎপাদনশীলতা বেড়ে যায়।

৪. সন্তান থাকলে কাজের দক্ষতাও বাড়ে

গবেষণায় জানা গেছে, সন্তানহীন ব্যক্তির তুলনায় সন্তান রয়েছে এমন ব্যক্তিরা কর্মক্ষেত্রে ভালো কাজ করতে পারেন। তাদের কর্মদক্ষতা অন্যদের তুলনায় বেশি হয়।

৫. উচ্চাকাঙ্ক্ষা বাড়ে

এটা অনেকের ধারণা যে, সন্তান নেওয়ার পর মায়েদের উচ্চাকাঙ্ক্ষা কমে যায়। বাস্তবে দেখা গেছে, সন্তান ধারণের পর বহু মায়ের উচ্চাকাঙ্ক্ষা বরং বেড়ে যায়। এটি পিতাদের ক্ষেত্রেও প্রায় সমানভাবে প্রযোজ্য। তারা বাবা হওয়ার পর প্রায়ই উচ্চ পদে যাওয়ার আগ্রহে দ্বিগুণ উৎসাহে কাজ শুরু করেন।

৬. বন্ধুর সংখ্যায় পরিবর্তন

সন্তান ধারণের পর বহু পিতামাতাই আর বন্ধুদের সঙ্গে আগের মতো সময় দিতে পারেন না। এ কারণে তাদের বন্ধুর সংখ্যা কমে যায়। এ বিষয়টির কারণ ব্যাখ্যা করেছেন গবেষকরা। তারা জানিয়েছেন, একজন নারী সন্তান গ্রহণের আগে সপ্তাহে ১৪ ঘণ্টা করে বন্ধুদের সঙ্গে সময় দিতে পারেন। কিন্তু সন্তান গ্রহণের পর এ সময় কমে পাঁচ ঘণ্টায় দাঁড়ায়। প্রায় অনুরূপ পরিস্থিতি দেখা যায় পুরুষের বেলাতেও। ফলে বন্ধুর সংখ্যা দ্রুত কমে যায়।

৭. সংসার জীবনে সমস্যা বাড়ে

সন্তান গ্রহণ অন্য বহু ক্ষেত্রে সাফল্য আনলেও বিবাহিত জীবন বা সংসার জীবনে সমস্যা সৃষ্টি করে। গবেষণায় দেখা গেছে, সন্তানের সংখ্যা যত বেশি হবে সংসারে সমস্যাও তত বাড়বে। এতে দম্পতিতের বিবাহিত জীবনের সন্তুষ্টিও কমে যায়।

৮. পিতামাতার স্বাস্থ্য সমস্যা বাড়ে

সন্তান হওয়ার পর সন্তানের খাবারের দিকে বাড়তি মনোযোগী হলেও নিজেদের খাবারের দিকে আর আগের মতো মনোযোগ দিতে পারেন না পিতামাতা। এ কারণে সন্তান গ্রহণের পর তাদের স্বাস্থ্য তুলনামূলকভাবে খারাপ হয়ে যায়।

৯. পিতামাতার মানসিক সন্তুষ্টি বাড়ে

সন্তান গ্রহণের পর পিতামাতার মনের সুখ অনেকাংশে বেড়ে যায়। বহু জরিপেই দেখা গেছে, সন্তান ধারণের পর পিতামাতা তাদের আগের তুলনায় সুখী বলে দাবি করছেন। গবেষকরা বলছেন, এর পেছনে একটি বড় কারণ হলো সন্তানের সঙ্গে খেলাধুলা। এটি তাদের মানসিক পরিবর্তন ঘটায়।

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Posts 3857
Post Views 183