MysmsBD.ComLogin Sign Up

অদ্ভুত রোগ, সূর্য ডুবলেই পঙ্গু!

In ভয়ানক অন্যরকম খবর - May 06 at 10:31pm
অদ্ভুত রোগ, সূর্য ডুবলেই পঙ্গু!

গ্রামবাসী তাদের নাম দিয়েছেন ‘সৌর শিশু’। আসলে তারা অদ্ভুত এক ধরণের রোগে আক্রান্ত। দিনের বেলায় আর পাঁচটা বাচ্চার মতোই পড়াশোনা করে, খেলে বেড়ায় ওরা।

কিন্তু সূর্য ডুবলেই যেন ফুরিয়ে যায় ওদের প্রাণশক্তি। নড়াচড়ার ক্ষমতা পর্যন্ত থাকে না। অদ্ভুত এ রোগের সন্ধান মিলেছে পাকিস্তানে।

পাকিস্তানের কোয়েত্তা থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে মিয়ান কুন্ডি নামে একটা ছোট্ট গ্রামে বাবা-মা এবং ভাই-বোনেদের সঙ্গে থাকে শোয়েব, রশিদ এবং ইলিয়াস নামের তিন ভাই। ওদের বয়স এক থেকে তেরোর মধ্যে।

তিন জনই এক বিরল রোগে আক্রান্ত। আর এই রোগের বিষয়ে চিকিৎসকদের কাছে এখন পর্যন্ত কোনও সঠিক তথ্য নেই।

অবশ্য এই তিন ভাই ছাড়া বাকি ভাই-বোনেদের এই সমস্যা নেই বলেই জানিয়েছেন ওই শিশুদের বাবা হাসিম।

তিনি আরও জানিয়েছেন, জন্মের পর থেকেই
এই অদ্ভুত সমস্যা দেখা গিয়েছিল তাঁর তিন সন্তানের শরীরে গ্রামবাসীরা যখন এই সমস্যার কথা জানতে পারেন, অবাক হয়েছিলেন সবাই।

গ্রামে তাদের নাম দেওয়া হয়েছে ‘সৌর শিশু’। সূর্যের সঙ্গে তাদের ‘বেঁচে’ ওঠা, চলাফেরা। ইসলামাবাদে তিন ছেলের চিকিৎসা করাচ্ছেন পেশায় নিরাপত্তা রক্ষী হাসিম। ওই তিন ভাইয়ের চিকিৎসার জন্য ন'জন চিকিৎসক নিয়ে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, এটা বিরল রোগ। আর পাকিস্তানে এই প্রথম এমন জটিল রোগ দেখা গেছে।

ইতোমধ্যেই ওই তিন ভাইয়ের সব রকম পরীক্ষা-নিরীক্ষা করানো হয়েছে। এমনকী, ওদের রক্তের নমুনা আর সব রকম রিপোর্টও বিদেশে পাঠানো হয়েছে। কিন্তু তাতে কোনও ফল আসেনি।

চিকিৎসা বিজ্ঞান কী বলছে, তা নিয়ে অবশ্য মাথাব্যথা নেই তিন ভাইয়ের। দিনের বেলায় তারা আর পাঁচটা শিশুর মতোই স্বাভাবিক। ওদের মধ্যে দুই ভাই স্কুলে যায়, অন্য ছেলেদের সঙ্গে ক্রিকেটও খেলে। এমনকী মাঝে মাঝে বাবার কাজেও সাহায্য করে।

কিন্তু সন্ধ্যা নামার সঙ্গে সঙ্গেই যেন অন্ধকার নেমে আসে ওদের শরীরেও। পঙ্গু হয়ে যায় ওরা। কিন্তু ভোরবেলায় সূর্যের প্রথম কিরণের সঙ্গে সঙ্গেই আবার প্রাণশক্তি ফিরে পায় ওরা। তবে হাসিম অবশ্য জানিয়েছেন, সূর্যের দেখা না মিললেও ওদের রুটিনের অবশ্য কোনও পরিবর্তন হয় না।

এত কিছুর পরেও অবশ্য আশা ছাড়ছেন না চিকিৎসকেরা। দেশ-বিদেশের চিকিৎসকরা মিলে হাতড়ে বেড়াচ্ছেন এই রোগের প্রতিকার।

এক চিকিৎসক জানালেন, এই বিরল রোগের মধ্যেও অবশ্য একটা ভাল দিক রয়েছে। কারণ সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ওই তিন ভাইয়ের অবস্থার কোনও অবনতি হয়নি। ফলে মনে হচ্ছে, এই রোগের নিশ্চয়ই কোনও না কোনও প্রতিকার থাকবেই।"

Googleplus Pint
Noyon Khan
Posts 3489
Post Views 825