MysmsBD.ComLogin Sign Up

[Trick] Uc Browser দিচ্ছে ৪০০০টাকা করে বিকাশে। বাংলাদেশ থেকে প্রথম থেকে ৪০০০ জন পাবে ৪০০০ টাকা করে ।

অস্ট্রেলিয়ার যত ব্যাটিং বিপর্যয়!

In ক্রিকেট দুনিয়া - Nov 17 at 9:05pm
অস্ট্রেলিয়ার যত ব্যাটিং বিপর্যয়!

গত জুলাইয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছিল টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ট্রফি। কিন্তু সেই সুখস্মৃতি মিলিয়ে গেছে খুব দ্রুতই। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশের পর ঘরের মাঠেও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ হেরেছে অসিরা। হোবার্টে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে মাত্র ৮৫ রানে অলআউট হয়ে যাওয়ার পর ইনিংস ব্যবধানে হারের লজ্জায় ডুবতে হয়েছে ক্রিকেটের সবচেয়ে সফল এই দেশকে। অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানদের ভয়াবহ ব্যর্থতা ক্রিকেটপ্রেমীদের স্মরণ করিয়ে দিয়েছে তাদের আরো কয়েকটি ব্যাটিং বিপর্যয়ের কথা।

কেপটাউন, নভেম্বর ২০১১
অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং বিপর্যয়ের কথা বলতে গেলে শুরুতেই চলে আসে ২০১১ সালের কেপটাউন টেস্টের কথা। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সেবার অসিরা পড়েছিল মাত্র ৪৭ রানে অলআউট হওয়ার লজ্জায়। গত ১০০ বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে এটাই টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার সর্বনিম্ন স্কোর। এর চেয়ে কম রানে অস্ট্রেলিয়া গুটিয়ে গিয়েছিল ১৮৯৬ সালে, ৪৪ রানে।

অথচ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া সংগ্রহ করেছিল ২৮৪ রান। এরপর দক্ষিণ আফ্রিকাকে গুটিয়ে দিয়েছিল মাত্র ৯৬ রানে। জয় ছাড়া অন্য কিছু হয়তো ভাবছিলেন না অসি সমর্থকরা। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া পড়ে ভয়াবহ ব্যাটিং বিপর্যয়ের মুখে। মাত্র ৪৭ রানে অলআউট হওয়ার পর সেই টেস্টটিও তারা হেরে যায় আট উইকেটের ব্যবধানে। দ্বিতীয় ইনিংসে শুধু দুই অস্ট্রেলিয়ান বোলার পিটার সিডল ও নাথান লিওন পৌঁছাতে পেরেছিলেন দুই অঙ্কের ঘরে।

ট্রেন্ট ব্রিজ, আগস্ট, ২০১৫
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অ্যাশেজ সিরিজের চতুর্থ ম্যাচটি অস্ট্রেলিয়ার সমর্থকরা মনে রেখেছেন ‘টেরর অ্যাট ট্রেন্ট ব্রিজ’ নামে। স্টুয়ার্ট ব্রডের অসাধারণ বোলিংয়ে প্রথম ইনিংসে মাত্র ১৮.৩ ওভার ব্যাটিং করতে পেরেছিল অস্ট্রেলিয়া। অলআউট হয়েছিল মাত্র ৬০ রানে। দুই অঙ্কের ঘরে পৌঁছেছিলেন শুধু অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক ও মিচেল জনসন। সেই ইনিংসে সর্বোচ্চ ১৪ রান এসেছিল অতিরিক্ত থেকে। মাত্র ১৫ রানের বিনিময়ে আটটি উইকেট নিয়েছিলেন ব্রড। শেষপর্যন্ত ইনিংস ও ৭৮ রানের বিশাল ব্যবধানে হারের পর অ্যাশেজ সিরিজটাও হেরেছিল অস্ট্রেলিয়া।

গল, আগস্ট, ২০১৬
ঠিক এক বছর পর আরেক আগস্টে অস্ট্রেলিয়া আবারও হয়েছিল ভয়াবহ ব্যাটিং বিপর্যয়ের শিকার। এক উইকেটে ৫৪ রানের পর মাত্র ৫২ রান সংগ্রহ করতে অস্ট্রেলিয়া হারিয়েছিল বাকি নয়টি উইকেট। প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার স্কোর দাঁড়িয়েছিল ১০৬। এই টেস্টে শ্রীলঙ্কা জিতেছিল ২২৯ রানের বিশাল ব্যবধানে।

পার্থ, নভেম্বর ২০১৬
দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে চলমান টেস্টে সিরিজের প্রথম ম্যাচেও অসিরা হয়েছিল ব্যাটিং বিপর্যয়ের শিকার। স্কোরবোর্ডে ২৪৪ রান দেখে হয়তো সেটা বোঝা যাবে না। কিন্তু এই ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার স্কোরবোর্ডে ১৫৮ রান জমা হয়েছিল কোনো উইকেট না হারিয়েই। মাত্র ৮৬ রান সংগ্রহ করতেই অস্ট্রেলিয়া হারিয়েছিল ১০টি উইকেট। দুই ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার (৯৭) ও শন মার্শ (৬৩) ছাড়া আর কেউই বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি উইকেটে। এই টেস্টেও অস্ট্রেলিয়া হেরেছিল ১৭৭ রানের ব্যবধানে।

হোবার্ট, নভেম্বর ২০১৬
দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও অসিদের ব্যাটিং বিপর্যয় ছিল চোখে পড়ার মতো। দুটি ইনিংসেই ভরাডুবি ঘটে স্বাগতিকদের। আর প্রোটিয়ারা নিশ্চিত করে তাঁদের সিরিজ জয়। প্রথম ইনিংসে স্মিথ খেলেছিলেন ৪৮ রানের অপরাজিত ইনিংস, কিন্তু অন্যরা সবাই মিলেও করতে পারেননি করতে পারেননি স্মিথের সমান রান। ফলে অস্ট্রেলিয়ার তাঁদের ইনিংস গুটিয়ে যায় মাত্র ৮৫ রানে।

দ্বিতীয় ইনিংসেও ভালো কিছু করতে পারেনি অস্ট্রেলিয়া। ২৪১ রানে পিছিয়ে থেকে ব্যাট করতে নেমে ৭৯ রানে হারিয়েছিল দুই উইকেট। এরপর মাত্র ৮২ রান সংগ্রহ করতেই অসিরা হারিয়েছিল বাকি আটটি উইকেট। দ্বিতীয় দিন বৃষ্টিবিঘ্নিত হওয়ার পরও খেলাটি সমাপ্ত হয় দুই দিন ও একটি সেশনে।

আগামী ২৪ নভেম্বর থেকে শুরু হতে যাচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা-অস্ট্রেলিয়া সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্ট। এবার নিশ্চয়ই এ ধরনের লজ্জা এড়ানোর সর্বোচ্চ চেষ্টাই করবেন অসি ব্যাটসম্যানরা।

তথ্যসূত্রঃ এনটিভি অনলাইন

[Trick] Uc Browser দিচ্ছে ৪০০০ টাকা করে বিকাশে। বাংলাদেশ থেকে প্রথম থেকে ৪০০০ জন পাবে ৪০০০ টাকা করে ।

Googleplus Pint
Anik Sutradhar
Posts 6919
Post Views 373