MysmsBD.ComLogin Sign Up

‘ধর্ষণ’ থেকে বাঁচতে কমনরুমের বেড়া ভেঙে পুকুরে ঝাঁপ

In দেশের খবর - Oct 31 at 8:57pm
‘ধর্ষণ’ থেকে বাঁচতে কমনরুমের বেড়া ভেঙে পুকুরে ঝাঁপ

বগুড়ায় তিন বখাটে মাদ্রাসার কমনরুমে ঢুকে ধারালো অস্ত্রের মুখে এক ছাত্রীকে ‘ধর্ষণের চেষ্টা’ করেছে। সপ্তম শ্রেণির ওই ছাত্রী কমনরুমের বেড়া ভেঙে পুকুরে ঝাঁপ নিয়ে নিজেকে রক্ষা করেছে।

সোমবার সকালে শাজাহানপুর উপজেলার একটি মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটে।

বখাটেরা হলো- শাজাহানপুর উপজেলার কাবাষট্টি গ্রামের আবদুল কুদ্দুসের ছেলে মুক্তা (২০), তার বন্ধু একই গ্রামের আজহার আলীর ছেলে সোহাগ (১৮) ও ময়েজ উদ্দিনের ছেলে আবু তোহা (১৯)।

শাজাহানপুর উপজেলার গোহাইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলী আতোয়ার ফজু ও এলাকাবাসী জানান, মুক্তা, সোহাগ ও তোহা দীর্ঘদিন ধরে মাদ্রাসার ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করে আসছিল। অভিভাবকদের কাছে নালিশ করেও লাভ হয়নি।

সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ওই ছাত্রী মাদ্রাসায় আসে এবং অপর দুজনের সঙ্গে কমনরুমে বসেছিল। এ সময় ধানকাটার কাঁচি হাতে মুক্তা, সোহাগ ও তোয়া মাদ্রাসার কমনরুমে যায়। তারা ভয় দেখিয়ে দুই ছাত্রীকে রুম থেকে বের হয়ে যেতে বাধ্য করে।

এরপর মুক্তা ভেতরে ঢুকে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। তার হাত থেকে বাঁচতে ছাত্রী চিৎকার করে এবং আত্মরক্ষায় টিনের বেড়া ভেঙে পাশের পুকুরে ঝাঁপ দেয়।

পরে আশপাশের লোকজন ছুটে আসলেও দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। ছাত্রীকে পুকুর থেকে উদ্ধার করে তার বাড়িতে পৌঁছে দেয়া হয়।

ইউপি চেয়ারম্যান ওই তিন বখাটেকে অবিলম্বে গ্রেফতার ও তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।

শাজাহানপুর থানার ওসি মাসউদ চৌধুরীর দাবি, মুক্তা প্রেম নিবেদন করতে মাদ্রাসায় এসেছিল। এসময় ছাত্রী ভয়ে পুকুরে নেমে গিয়েছিল।

তিনি জানান, এরপরও তিন বখাটে গ্রেফতার করতে তাদের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছিল। পালিয়ে থাকায় তাদের গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।

ওসি জানান, এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দিতে অভিভাবকদের বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Googleplus Pint
Asifkhan Asif
Posts 1372
Post Views 706