MysmsBD.ComLogin Sign Up

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রস্তুতি পরামর্শ

In পড়াশোনা নিউজ - Oct 27 at 12:15am
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রস্তুতি পরামর্শ

জাহাঙ্গীরগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা ১৯ নভেম্বর থেকে শুরু হবে। পরীক্ষা চলবে ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত। বিশ্ববিদ্যালয়ের সি ইউনিটের অধীনে মূলত কলা অনুষদের বিষয়গুলোর ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ পরীক্ষার প্রস্তুতি কেমন হবে সে সম্পর্কে লিখেছেন তাসফিয়াহ তাসনিম রিচি। তিনি ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় ইংরেজি বিভাগে মেধা তালিকায় দ্বিতীয় হয়েছিলেন।

প্রথমত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে যাঁরা কলা অনুষদ বা সি ইউনিটে পড়তে ইচ্ছুক, তাঁদের জন্য সি ইউনিটের বিভাগগুলো সম্পর্কে আগে জানতে হবে। সি ইউনিটের অধীন কলা অনুষদে রয়েছে মোট নয়টি বিভাগ। এগুলো হলো আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, বাংলা, ইংরেজি, ইতিহাস, দর্শন, প্রত্নতত্ত্ব, নাটক ও নাট্যতত্ত্ব, জার্নালিজম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ ও চারুকলা।

সি ইউনিটের প্রশ্ন পদ্ধতি এবং মানবণ্টন

এবার আসি সি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্ন কেমন হবে তা নিয়ে আলোচনায়। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অনুযায়ী বাংলার জন্য ১৫ নম্বর, ইংরেজির জন্য ১৫ নম্বর এবং অনুষদ সংশ্লিষ্ট বিষয়ের জন্য ৭০ নম্বর বরাদ্দ থাকবে। এখানে অনুষদ সংশ্লিষ্ট বিষয় বলতে বোঝানো হয়েছে, অনুষদে যেই নয়টি বিভাগ রয়েছে সেই সব বিভাগ সংশ্লিষ্ট প্রশ্ন থাকবে।

কীভাবে প্রস্তুতি নেবেন

এখন আসি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের জন্য কীভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে। যেহেতু বাংলা আর ইংরেজিতে ১৫ করে বরাদ্দ, সেহেতু এই দুটি বিষয়ে জোর দিতে হবে বেশি করে। বাংলার জন্য নবম-দশম শ্রেণির ব্যাকরণ বইটা খুব ভালোমতো পড়তে হবে, সঙ্গে নবম শ্রেণি আর উচ্চ মাধ্যমিকের সাহিত্য বইগুলো থেকে প্রতিটা অধ্যায় একবার করে পড়ে শেষ করতে হবে। লেখক বা কবি পরিচিতি, শব্দার্থসহ যত প্রয়োজনীয় তথ্য আছে পড়ে নিতে হবে। এগুলো ছাড়াও সহায়ক হিসেবে সৌমিত্র শেখরের জিজ্ঞাসা বইটি পড়লে প্রস্তুতি ভালো হবে।

ইংরেজির জন্য ভালো মানের গ্রামার বই থেকে গ্রামার পড়তে হবে এবং বিভিন্ন ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নসংবলিত যে বইগুলো থাকে, সেগুলো থেকে প্রতিটা প্রশ্ন সমাধান করার চেষ্টা করতে হবে। আর ইংরেজি সাহিত্য সম্পর্কিত এমসিকিউ প্রশ্ন ও উত্তরসংবলিত বই নিয়ে পড়লেই ইংরেজির জন্য পূর্ণাঙ্গ প্রস্তুতি হবে।

বাকি সাতটি বিষয় পড়তে হবে একটু বুদ্ধি খাটিয়ে। এ বছর নতুন নিয়ম, ইউনিট একটাই আর ৭০ নম্বরের মধ্যে সাতটি বিভাগ থেকেই ১০ নম্বর করে প্রশ্ন থাকবে, তাই প্রতিটি বিভাগের বিষয়বস্তু সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে।

এই বাকি সাতটি বিভাগ থেকেই কোনো না কোনোভাবে সাধারণ জ্ঞান প্রশ্ন আসবেই। তাই সাধারণ জ্ঞানের প্রস্তুতি নিতেই হবে। এমন বই কিনতে হবে যেখানে বাংলাদেশ ও বিশ্ব আলাদা করে দেওয়া আছে এবং প্রতিটি ঘটনা সাল অনুযায়ী গুছিয়ে আলাদা করে দেওয়া আছে। তাহলে সব তথ্য মনে রাখা সহজ হবে। এ ছাড়া ভর্তি পরীক্ষার মাসসহ এর আগেকার অন্তত পাঁচ মাস পর্যন্ত ঘটনাবলি সংক্রান্ত ম্যাগাজিন যেমন কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স/নিউজ/ওয়ার্ল্ড পড়তে হবে। এসব সংখ্যা থেকে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা, সীমানা, বিভিন্ন রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ খবর পড়ে রাখতে হবে।

বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতি

বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতির জন্য ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের জন্য নবম-দশম শ্রেণির সমাজ বইয়ের ইতিহাস অংশ ও ইতিহাস বই পড়তে হবে। প্রত্নতত্ত্বর জন্য অতিরিক্ত পড়তে হবে সমাজ বইয়ের ভূগোল অংশ ও ভূগোল বই। দর্শন বিভাগে প্রধানত আই কিউ ও সাধারণ জ্ঞানবিষয়ক প্রশ্ন আসে, তাই এই দুটোতেও প্রস্তুতি রাখতে হবে।

নাটক ও নাট্যতত্ত্ব এবং চারুকলার জন্য আলাদা বই কিনতে পাওয়া যায় সেখান থেকে গুরুত্বপূর্ণ শিল্পী ও নাট্যকার এবং তাদের সৃষ্টিবিষয়ক তথ্য ও এমসিকিউ প্রশ্ন পড়তে হবে, রেনেসাঁ যুগের তথ্যগুলো একটু বেশি পড়তে হবে।

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক পুরোটা ইংরেজি ও সাধারণ জ্ঞানভিত্তিক প্রশ্ন হবে। জার্নালিজম ও মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের ক্ষেত্রেও সাধারণ জ্ঞানের প্রশ্ন থাকবে তবে তাতে সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ সম্পর্কিত তথ্য প্রাধান্য বেশি পাবে।

Googleplus Pint
Asifkhan Asif
Posts 1372
Post Views 215