MysmsBD.ComLogin Sign Up

উইকেটের সহযোগিতা নয়, তামিম চান ভালো খেলা

In ক্রিকেট দুনিয়া - Oct 26 at 10:17pm
উইকেটের সহযোগিতা নয়, তামিম চান ভালো খেলা

চট্টগ্রাম টেস্টের আগে আলোচনায় ছিল উইকেট। সাকিব আল হাসান বলেছিলেন, উইকেট সহায়ক হলে আমরা প্রতিপক্ষের ২০ উইকেটও নিতে সক্ষম। মুশফিকুর রহীম চেয়েছিলেন নিজেদের মত উইকেট। সেটাই পেলো বাংলাদেশ। এই প্রথম বাংলাদেশের মাটিতে কোন এক টেস্টে পুরো ৪০ উইকেটের পতন ঘটেছে। জিম্বাবুয়ে আর ওয়েস্ট ইন্ডিজছাড়া এই প্রথম কোন প্রতিষ্ঠিত শক্তির পুরো ২০ উইকেট নিতে পেরেছে বাংলাদেশ। তবুও, শেষ পর্যন্ত ২২ রানে হারতে হয়েছে বাংলাদেশকে।

চট্টগ্রাম টেস্ট শেষে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম নিজেই জানিয়েছিলেন, উইকেটটা মনেরমত পেয়েছেন। এ কারনে তিনি কিওরেটরকেও ধন্যবাদ জানান। তবে, বাংলাদেশ দলের ওপেনার তামিম ইকবাল মনে করেন, উইকেট পক্ষে থাকলেই যে জেতা যাবে তা নয়। চট্টগ্রামে তো উকেট নিজেদের পক্ষেই ছিল। তবুও তো জিততে পারেনি বাংলাদেশ। সুতরাং, উইকেটের সহযোগিতা নয়, জিততে হলে নিজেদেরই ভালো খেলতে হবে।

মিরপুরে আজ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তামি ইকবাল উইকেট সম্পর্কে বলেন, ‘উইকেট আমাদের পুরোপুরি ফেভারে ছিল। যেটা চেয়েছিলাম সেটা পেয়েও আমরা ম্যাচ হেরেছি। আমি মনে করি, উইকেটে যদি মানিয়ে নেয়া যায়, তাহলে সেটা ভালো। আমাদের ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে। আমাদেরকে ওই উইকেটকে ভালোভাবে ব্যবহার করতে হবে।’

মনের মত উইকেট পেয়েও যদি কাজে লাগানো না যায়, তাহলে তাতে কোন ফায়দা নেই বলেই মনে করেন তামিম। তিনি বলেন, ‘আমাদের চাওয়া মতো উইকেট পেয়ে গেলাম কিন্তু কাজে লাগাতে পারলাম না তাহলে কী হবে! উইকেটকে দোষ দিয়ে তো লাভ নাই। আমরা খেলোয়াড়রা কিভাবে কম ভুল করবো। কিভাবে উইকেট অনুযায়ী খেলবো, কিভাবে উইকেটে সেট হবো- সেখানেই আমাদের ফোকাস বেশি থাকা উচিত। আমাদের খেলোয়াড়রা সেভাবেই ফোকাস করছি। উইকেট এমন একটা জিনিস, যা আমাদের হাতে নেই। স্পিনিং উইকেট বানালে দেখা গেল, একটা বলও ঘুরছে না। আমার মনে হয়, আমাদের কাজ আগে আমরা ঠিকঠাক করি।’

ঢাকায় কেমন উইকেট চান তামিম? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এটা আসলে টিম ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্ত হবে। এটা এখানে আমি বলে দেওয়া সঠিক হবে না। এটা নিয়ে নিশ্চয়ই পরিকল্পনা হচ্ছে। আমরা সবাই আলোচনা করবো। যেটা আমাদের জন্য ভালো, সেটা দলের সঙ্গে বেশি মানানসই হবে। আমার মনে হয়, তেমন ধরনেরই উইকেট হবে।’

উপমহাদেশে খেলা হলেই উইকেট নিয়ে বেশি আলোচনা হয়। এ বিষয়টাতে খুব মজা পান তামিম। তিনি বলেন, ‘একটা জিনিস খুব মজা লাগে, যখন এই অংশে (উপমহাদেশে) খেলা হয়, তখনই উইকেট নিয়ে বেশি আলোচনা হয়। আমরা তো কোনো সময় ইংল্যান্ডে গিয়ে স্পিনিং উইকেট আশা করি না। আমরা জানি ওখানে সিমিং কন্ডিশন, এটা সবাই জানে। আমাদের অংশে এলেই, বাংলাদেশ বা ভারতে খেলা হলেই উইকেট নিয়ে বেশি আলোচনা হয়। আমার মনে হয়, হোম অ্যাডভান্টেজ থাকা উচিত।’

চট্টগ্রামের মত ঢাকায়ও যদি একইরকম উইকেট হয়, তাহলে দলের জন্য ভালো হবে বলেও মনে করেন তামিম। তবে, একই সঙ্গে চট্টগ্রামের ভুলগুলো যাতে পূনরাবৃত্তি না হয়, সে দিকেও নজর রাখার কথা বললেন তিনি। তামিম বলেন, ‘যে ধরনের উইকেট ছিল সেখানে, ব্যাটিংটা খুব সহজ ছিল না। তারপরও দুই ইনিংসেই আমাদের সময় এসেছিল। ব্যক্তিগতভাবে কারোর কিছু সময় এসেছিল। যখনই যার সময় আসে, সেটা যদি আরেকটু বড় হত তাহলে শেষ ম্যাচে আমাদের কাজটা আরও সহজ হত। উইকেটের আচরণ যদি একই রকম থাকে ঢাকায়, তাহলে পরিকল্পনা একই রকম থাকবে। চট্টগ্রামে যা হয়েছে, ব্যাটসম্যানরা যদি তার চেয়ে ২০/২৫ রান আরও বেশি করে তাহলে আমরা হয়ত আরও ভালো অবস্থানে থাকবো।’

তথ্যসূত্রঃ জাগোনিউজ২৪

Googleplus Pint
Anik Sutradhar
Posts 7002
Post Views 284