MysmsBD.ComLogin Sign Up

[Trick] Uc Browser দিচ্ছে ৪০০০টাকা করে বিকাশে। বাংলাদেশ থেকে প্রথম থেকে ৪০০০ জন পাবে ৪০০০ টাকা করে ।

জেনফোন ২ লেজার : সাশ্রয়ী সংস্করণে নতুনত্ব কম

In মোবাইল ফোন রিভিউ - Oct 17 at 7:16am
জেনফোন ২ লেজার : সাশ্রয়ী সংস্করণে নতুনত্ব কম

ল্যাপটপের বাজারে ভালো অবস্থানে থাকা তাইওয়ানিজ ব্র্যান্ড আসুস স্মার্টফোনের বাজার দখলে মরিয়া হয়ে উঠেছে। তাই একের পর এক নতুন ডিভাইস এনে দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাইছে। গত বছর চার জিবি র‍্যামের জেনফোন ২ বাজারে চমক সৃষ্টি করেছিল। কম দামে উন্নত ফিচারের কারণে এটি বেশ জনপ্রিয়তা পায়।

ক্রমবর্ধমান বাজারে অবস্থান ধরে রাখতে আসুস এবার মধ্যম বাজেটের গ্রাহকদের লক্ষ্য করে এনেছে জেনফোন ২ লেজার। ডিসপ্লে ও কনফিগারেশনের উপর নির্ভর করে তিনটি সংস্করণে পাওয়া যাচ্ছে এটি।

পাঠকদের জন্য ৫ ইঞ্চি জেডই ৫০০কেজি মডেলের জেনফোন ২ লেজারের রিভিউ তুলে ধরা হলো।



বিল্ড কোয়ালিটি ও ডিজাইন:
ফোনটির ডিজাইন অনেকটা জেনফোন ২-এর মতো। দূর থেকে প্রথমে ডিজাইনটি দেখলে মনে হয় জেনফোন ২-এর মিনি সংস্করণ। তবে বিল্ড কোয়ালিটি বেশ ভালো।

এটির পেছনে রয়েছে প্লাস্টিক ফিনিশিং রিমুভেবল ব্যাককভার। পিছনে রয়েছে ক্যামেরা ও এলইডি ফ্ল্যাশ। ক্যামেরার নিচে রয়েছে ভলিউম বাটন। ফোনটির উপরে রয়েছে পাওয়ার বাটন ও ৩.৫ এমএম অডিও জ্যাক।

নিচের দিকে রয়েছে চার্জিং পোর্ট। ডিসপ্লে নিচের দিকে হোম, ব্যাক ও মাল্টিউইন্ডো টাচ স্ক্রিন বাটন রয়েছে। উপরের দিকে রয়েছে ফোন রিসিভার স্পিকার ও সেলফি ক্যামেরা।

সাইজ ছোট হওয়ার কারণে সহজেই এক হাতে অপারেট করা যায় ডিভাইসটি। ১৪০ গ্রাম ওজনের ফোনটির পুরত্ব ১৪৩*৭১*৩.৫ এমএম।

ডিসপ্লে:
৫ ইঞ্চি ডিসপ্লের ফোনটির রেজুলেশন ১২৮০*৭২০ পিক্সেল। এটি ২৯৪ পিপিআই পিক্সেল ডেনসিটির তৈরি। আইপিএস এলইডি সুবিধাযুক্ত ডিসপ্লের ফোনটি হাত থেকে পড়ে গেলেও যেন না ভাঙ্গে সেজন্য রয়েছে গরিলা গ্লাস ৪ প্রযুক্তি।

এটির ডিসপ্লে ভিউ অ্যাঙ্গেল ভালো। তবে সূর্যের আলোতে ডিসপ্লে ভিউ ভালো নয়। আলো নিয়ন্ত্রণের জন্য রয়েছে অটো ব্রাইটনেস সুবিধা। এ সুবিধাকে আরও আকষর্ণীয় ও সহজে পছন্দ অনুযায়ী নিয়ন্ত্রণের জন্য রয়েছে স্ক্রিন কালার মুড ফিচার। যেখান গিয়ে ব্যালেন্স, ব্লুলাইট ফিল্টার ও কাস্টমাইজ রঙ নির্বাচনের সুবিধা রয়েছে।

হার্ডওয়্যার:
১.২ গিগাহার্টজ কোয়াড কোর কোয়ালকম এমএসএম৮৯১৬ স্ন্যাপ্নড্রাগন ৪১০ প্রসেসরের ফোনটিতে গ্রাফিক্স সুবিধার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে অ্যান্ড্রেন ৩০৬ জিপিইউ।

গতিময় করতে ২ গিগাবাইট র‍্যাম ব্যবহার করা হয়েছে। ৮ ও ১৬ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরির সংস্করণে পাওয়া যাবে ডিভাইসটি।চাইলে মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করে ১২৮ গিগাবাইট পর্যন্ত মেমোরি বৃদ্ধি করা যাবে।



ক্যামেরা:
ছবি তোলার জন্য পিছনে রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। রাতে ভালো মানের ছবি তোলা যাবে ডুয়েল ফ্ল্যাশ ব্যবহার করে। সূর্যের আলোতে ভালো মানের ছবি তোলা যায়। তবে ইনডোরে ছবির মান তুলনামূলকভাবে কিছুটা খারাপ।

ক্যামেরায় রয়েছে লেজার অটোফাকাস, ফেইস ডিটেকশন, প্যানোরোমা সুবিধা, এইচডিআর। ব্যাক ক্যামেরা দিয়ে ১০৮০ পিক্সেল ভিডিও রেকর্ড করা যাবে।

সেলফি ও ভিডিও চ্যাটের জন্য সামনে থাকছে অটো ফোকাস সুবিধাযুক্ত ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সেলফি তোলার সময় ‘সেলফি প্যানোরোমা’ ফিচার ব্যবহার করা যাবে।

ছবি তোলার জন্য ক্যামের অ্যাপে আইএসও পরিবর্তন, হোয়াইট ব্যালেন্স, ইমেজ কোয়ালিটি, টাচ শাটার ইত্যাদি ফিচার রয়েছে। চাইলে সেটিংস থেকে ভলিউম বাটন ‘শার্টার বা জুম’ কি কাজে ব্যবহার করা হবে তা নিধারণ করা যাবে।



সফটওয়্যার:
এ ফোনে ইউজার ইন্টারফেস (ইউআই) ব্যবহার করা হলেও এতে কিছুটা ম্যাটারিয়াল ডিজাইনের উপস্থিতি রয়েছে। তবে জেন ইউআইটিকে অনেকটা অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে, যেন আগে যারা এ ইন্টারফেস ব্যবহার করেছেন তারা যাতে সমস্যায় না পড়েন।

এতে নানা রকম জেসচার রয়েছে, যা ডিভাইসটির ব্যবহার আরও সহজ করবে। ডিফল্ট সেলফি ক্যামেরা অ্যাপ্লিকেশনও রয়েছে। অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে রয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ৬.০।

গেইমিং:
ফোন এখন শুধু কথা বলার যন্ত্র নয়, অনেকের কাছে এটি গেইমিং ডিভাইস। কেননা স্মার্টফোনের খেলার জন্য পাওয়া যায় চমৎকার সব গ্রাফিক্সের রেসিং থেকে শুরু করে অ্যাকশন গেইম। ট্যাম্পল রান, ফ্রুট নিঞ্জা, রেসিং কার জাতীয় গেইমগুলো অনায়াসে খেলা যায় স্মার্টফোনে।

স্বল্প সময় এমন গেইম খেলা হলে ফোনটি তুলনামূলকভাবে গরম কম হয়। এটি অবশ্য স্বাভাবিক ঘটনা। কেননা সাধারণত যে কোনো অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে দীর্ঘক্ষণ গেইম খেললে তা গরম হয়ে যায়।

ডিভাইসটিতে গেইম খেলার সময় ল্যাগ অনুভূত হবে না। এ ছাড়া এ ফোনে ক্লাস অব ক্লানস, ফিফা ১৬, পোকেমন গো, হিরোস অব ৭১সহ প্রভৃতি জনপ্রিয় গেইম কোনো ধরণের ল্যাগ ছাড়াই খেলা যাবে।



কানেক্টিভিটি:
অ্যান্ড্রয়েডের সাধারণ ডিভাইসগুলোর চেয়ে এটির কানেক্টিভিটি কোনো অংশে মন্দ নয়। টুজি, থ্রিজির পাশাপাশি আছে ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ, এফএম সুবিধা।

সেন্সরের মধ্যে রয়েছে অ্যাক্সেলেরোমিটার ও লাইট এবং প্রক্সিমিটি সেন্সর।

ব্যাটারি:
জেনফোন ২ লেজার ডিভাইসটিতে রয়েছে ২ হাজার ৭০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি, যা তুলনামূলকভাবে কম মনে হতে পারে। ফোনটির ডিসপ্লে ৫ ইঞ্চি হওয়ার কারণে মোটামুটি ব্যবহার করে একদিন ব্যাকআপ সুবিধা পাওয়া যাবে।

অন্যদিকে মোবাইলে বেশিক্ষণ ইন্টারনেট চালালে বা অধিক গেইম খেললে একদিনে দুইবার চার্জ দিতে হতে পারে।

মূল্য:
দেশের বাজারে স্মার্টফোনটির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১২ হাজার ৭৫০ টাকা। বসুন্ধরা সিটিসহ অন্যান্য স্মার্টফোনের মার্কেট ও প্রযুক্তি পণ্যের মার্কেটে এক বছরের ওয়ারেন্টিতে কিনতে পারবেন গ্রাহকরা। সাদা, কালো ও লাল রঙয়ে পাওয়া যাবে ডিভাইসটি।

এক নজরে ভালো:
*সাউন্ড কোয়ালিটি ভালো
*মাইক্রো এসডি কার্ড সুবিধা রয়েছে
*ফোনটির সাইজ ছোট হওয়াতে এক হাতে সহজে ব্যবহার করা যায়
*ওটিজি সুবিধা

এক নজরে খারাপ:
*এনএফসি সুবিধা নেই
*সানলাইটে ডিসপ্লের ব্রাইটনেস ভালো নয়
*ডিজাইনে নতুনত্ব নেই

[Trick] Uc Browser দিচ্ছে ৪০০০ টাকা করে বিকাশে। বাংলাদেশ থেকে প্রথম থেকে ৪০০০ জন পাবে ৪০০০ টাকা করে ।

Googleplus Pint
Roney Khan
Posts 819
Post Views 176