MysmsBD.ComLogin Sign Up

ঘুরে আসুন প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যে সমৃদ্ধ 'ঋষিকেশ' থেকে

In দেখা হয় নাই - Oct 09 at 7:43am
ঘুরে আসুন প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যে সমৃদ্ধ 'ঋষিকেশ' থেকে

ঋষি ও সন্ন্যাসীদের ঘর বলে মনে হয় এবং সুবিখ্যাত গঙ্গা আরতি যা একই সঙ্গে নাটকীয় ও ধর্মীয় অনুভূতি বহন করে। বলছিলাম ভারতের উত্তরাখন্ডের ঋষিকেশের কথা।

প্রাকৃতিক দৃ্শ্যকল্পের সঙ্গে সংযুক্ত, রিভার, কায়াকিং ও বাঞ্জি জাম্পিং– ঋষিকেশে বিদ্যমান এইসমস্ত উত্তেজনাপূর্ণ মঞ্চসজ্জার সঙ্গে, রোমাঞ্চকর উৎসাহীরা বছরের পর বছর ধরে প্রেমে জড়িয়ে পড়ে, যা এটিকে 'ভারতের রোমাঞ্চকর রাজধানী' নামটি প্রদান করেছে।

ঋষিকেশে দর্শনীয় স্থান
ত্রিবেণী ঘাট: ত্রিবেণী হল তিনটি নদী গঙ্গা, যমুনা ও সরস্বতীর সঙ্গমস্থল। হাজার হাজার উপাসকেরা এখানে জলের মধ্যে একটি ডুব দিতে রোজ সকালে এবং বিকালে ত্রিবেণী ঘাটে ঝাঁকে ঝাঁকে ভিড় করে। তারা বিশ্বাস করেন যে এতে তাদের পাপ ধুয়ে যাবে। ত্রিবেণী ঘাটে অনুষ্ঠিত প্রতি সন্ধ্যায় গঙ্গা আরতির মহত্ত্ব এখানে দেখা যায়।

ভারত মন্দির:
আদিগুরু শঙ্করাচার্য্যের দ্বারা নির্মিত এটি দ্বাদশ শতকের এক মন্দির। এই মন্দিরের মধ্যে রাখা বিষ্ণুর মূর্তিটি হল একটি একক কালো রঙের জীবাশ্ম পাথরের দ্বারা উৎকীর্ণ, যা শালগ্রাম নামে অভিহিত।

ঋষিকূন্ড:
‘ঋষিকূন্ড’ শব্দটির অনুবাদ হল ‘ঋষির পুষ্কর’। কথিত আছে যে, কুব্জ ঋষির অনুরোধে যমুনা নদীর জল এই পুকুরের মধ্যে প্রবাহিত হয়। এছাড়াও এখানে একটি বিখ্যাত শনি মন্দিরও রয়েছে।

লক্ষণ ঝূলা ও রাম ঝূলা:
গঙ্গা নদী জুড়ে ব্যাপ্ত 450 ফুট দীর্ঘ সেতু দুটি হল শহরের ল্যান্ডমার্ক। একদিকে একটি সেতু যেমন তেহরি ও পৌরি জেলাকে যুক্ত করেছে, অন্যদিকে অন্যটি শিবানন্দ আশ্রম ও স্বর্গ আশ্রমকে সংযুক্ত করেছে। যদিও লক্ষণ ঝূলার রামায়ণের এক পৌরাণিক উপাখ্যনের সঙ্গে সংযোগ রয়েছে, রাম ঝূলা দুটি বিখ্যাত আশ্রমের সংযোগের জন্য নির্মিত হয়েছিল।

গুফা:
একসময়ের বিখ্যাত ঋষি বশিষ্ঠের গুহা, ঋষিকেশ থেকে 16 কিলোমিটার দূরে এই স্থানটি, বর্তমানে একটি প্রিয় ক্যাম্পিং (শিবির) স্থল।

ঋষিকেশের আশ্রমগুলি এক ধরনের খ্যাতি অর্জন করেছে। এখানকর বহু আশ্রমগুলি কোনও কষ্টসহিষ্ণু বা শালীনতার অর্থ জ্ঞাপন করে না, এগুলি নিজেরাই এক একটি পর্যটন চুম্বকাকর্ষণ হয়ে উঠেছে। ঋষিকেশের এই প্রকারের বেশ কয়েকটি প্রসিদ্ধ আশ্রমের তালিকা এখানে প্রদান করা হয়েছে।

ঋষিকেশ পরিদর্শনের সেরা সময়
ঋষিকেশ পরিদর্শনের সেরা সময় হল অক্টোবর থেকে মার্চ শীতের মাসগুলিতে। রোমাঞ্চকর কার্যকলাপ খোলা থাকে। এখানকার সংযুক্ত আকর্ষণ হিসাবে রয়েছে ফেব্রুয়ারি মাসে অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক যোগা উৎসব। -বিডিলাইভ২৪

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Posts 4116
Post Views 171