MysmsBD.ComLogin Sign Up

বাদ পড়ার ভয়ে একদিনের ক্রিকেট থেকে অবসর নিতে বাধ্য হয়েছিলেন শচীন?

In ক্রিকেট দুনিয়া - Sep 23 at 10:10pm
বাদ পড়ার ভয়ে একদিনের ক্রিকেট থেকে অবসর নিতে বাধ্য হয়েছিলেন শচীন?

সদ্যপ্রাক্তন জাতীয় নির্বাচক সন্দীপ পাতিলের বক্তব্যকে মান্যতা দিলে বলতে হবে, ২০১২ সালে একদিনের ক্রিকেট থেকে প্রায় জোর করে অবসর নিতে বাধ্য হয়েছিলেন শচীন তেন্ডুলকর। তিনি অবসর না নিলে দল থেকেও বাদ পড়তে পারতেন।

২০১২ সালের ২৩ ডিসেম্বর শচীন তেন্ডুলকর একদিনের ক্রিকেট থেকে অবসর নেন। তবে এরপরে প্রায় একবছর টেস্ট ক্রিকেট খেলেছেন তিনি। ২০১৩ সালের নভেম্বর মাসে নিজের ২৪ বছরের আন্তর্জাতিক কেরিয়ার থেকে অবসর নেন ক্রিকেটের ঈশ্বর।

শচীন যখন একদিনের ক্রিকেটকে বিদায় জানাচ্ছেন, তখন জাতীয় নির্বাচক প্রধান ছিলেন এই সন্দীপ পাতিলই। এখন তাঁর নির্বাচকের দায়িত্বের সময়সীমা উত্তীর্ণ হয়েছে। ফলে সেজন্যই তিনি ২০১২ সালের ঘটনায় আলোকপাত করেছেন।

তিনি জানিয়েছেন, শচীনকে একদিনের দল থেকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। শচীনকে সে ব্যাপারে জানানোও হয়। ১২ ডিসেম্বর ২০১২তে আমরা শচীনের সঙ্গে আলোচনায় বসি এবং ওঁর ভবিষ্যতের পরিকল্পনার কথা জিজ্ঞাসা করি।

শচীন জানান, এখুনি অবসরের কোনও ভাবনা তাঁর নেই। তবে আলোচনা শেষে ঐক্যমত্যে পৌঁছনো সম্ভব নয়। ভারতীয় বোর্ডকেও সেই বিষয় জানানো হয়েছিল বলে সন্দীপ পাতিল জানিয়েছেন।

এক মারাঠি সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে সন্দীপ পাতিল বলেন, "শচীন বুঝে গিয়েছিল কী হতে চলেছে। ফলে পরের মিটিংয়েই শচীন জানিয়ে দেয় যে ও একদিনের ক্রিকেট থেকে অবসর নিতে চলেছে।" পাতিলের আরও দাবি, শচীন সেদিন অবসর না নিলে নিশ্চিতভাবেই দল থেকে বাদ পড়ত।

প্রসঙ্গত, শচীন নিজের কেরিয়ারে মোট ৪৬৩টি একদিনের ম্যাচ খেলেছেন। ৪৯টি শতরান ও ৯৬টি অর্ধশতরান সহ করেছেন ১৮,৪২৬ রান। ১৯৮৯ সালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অভিষেক হয় শচীনের। সেই পাকিস্তানের বিরুদ্ধেই ২০১২ সালের ১৮ মার্চ শেষ একদিনের ম্যাচ খেলেন তিনি। প্রথম ম্যাচে ০ রানে আউট হলেও জীবনের শেষ ম্যাচে ৫২ রানের ইনিংস খেলেন 'মাস্টার ব্লাস্টার'। - ওয়ান ইন্ডিয়া

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Posts 3793
Post Views 420