MysmsBD.ComLogin Sign Up

এইচএসসি পরীক্ষার খাতা পুন:নিরীক্ষণের ফল প্রকাশ কাল

In পড়াশোনা নিউজ - Sep 16 at 11:42pm
এইচএসসি পরীক্ষার খাতা পুন:নিরীক্ষণের ফল প্রকাশ কাল

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার খাতা পুন:নিরীক্ষণের ফল প্রকাশ করা হবে শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর)। দুপুরে পুন:নিরীক্ষণের আবেদনের সময় দেয়া টেলিটক মোবাইল নম্বরে ক্ষুদে বার্তার মাধ্যমে ফলাফল জানিয়ে দেয়া হবে। এছাড়াও প্রতিটি বোর্ডের নিজস্ব ওয়েবসাইট থেকেও এ ফলাফল জানা যাবে।

আটটি সাধারণ ও মাদ্রাসা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ৩ লাখ ৩৩ হাজার ৩২২টি উত্তরপত্র পুন:নিরীক্ষণের জন্য আবেদন করা হয়েছে। বোর্ড সংশ্লিষ্টদের মতে অন্যান্যবারের চেয়ে এবার ফল পুন:নিরীক্ষণের আবেদনের সংখ্যা বেড়েছে।

সংশ্লিষ্টদের ধারণা, পূর্ববর্তী সময়গুলোতে কাক্সিক্ষত ফল অর্জন করতে না পারার কারণে মূলত পুন:নিরীক্ষণের আবেদন করতো শিক্ষার্থী। এবার আবেদন বেশি হওয়ার পেছনে ফলাফলে জিপিএ’র পাশাপশি নম্বর দেখতে পাওয়া অন্যতম।

এ বিষয়ে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মাহাবুবুর রহমান বলেন, নম্বর দেয়ার ফলে শিক্ষার্থীরা দেখতে পাচ্ছে তার জিপিএ কতো এবং প্রাপ্ত নম্বর কতো। এমনও আছে ৭৯ পেয়েছে, তার গ্রেড কিন্তু এ। আগে সে জানতো না কতো নম্বর পেয়ে এ গ্রেড পেয়েছে। এখন জানতে পারছে এবং পুন:নিরীক্ষণের জন্য আবেদন করছে। একারণে অন্যান্যবারের চেয়ে এবার পুন:নিরীক্ষণের আবেদনের সংখ্যা বেড়েছে।
৮ আগস্ট ফল প্রকাশের পর শুধু ঢাকা বোর্ডে ১ লাখ ৪০ হাজার উত্তরপত্র পুন:নিরীক্ষণের জন্য আবেদন করা হয়েছে। চট্টগ্রাম বোর্ডে ৫৫ হাজার, রাজশাহী বোর্ডে ৪০ হাজার, কুমিল্লা বোর্ডে ৩২ হাজার, যশোর বোর্ডে ৩১ হাজার, সিলেট বোর্ডে ১৭ হাজার, বরিশাল বোর্ডে সাড়ে ১৯ হাজার, দিনাজপুর বোর্ডে সাড়ে ২৭ হাজারের মতো উত্তরপত্র পুন:নিরীক্ষণের জন্য আবেদন করেছে শিক্ষার্থী।

যশোর বোর্ডে কমেছে পুন:নিরীক্ষণের আবেদনের সংখ্যা। যেখানে গতবছর ছিল প্রায় ৪১ হাজার আবেদন, এবার প্রায় ১০ হাজার কমে ৩১ হাজারে দাঁড়িয়েছে। এর কারণে হিসেবে আগেরবারের ফল বিপর্যয় এবং এবারের অভাবনীয় ফলাফল কাজ করেছে বলে মনে করেন যশোর বোর্ড কর্তৃপক্ষ। তাদের মতে, কাক্সিক্ষত ফলাফল অর্জন করার কারণে এবার আবেদন কম হয়েছে।

এছাড়া প্রায় সব বোর্ডেই পুন:নিরীক্ষণের আবেদনের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। কুমিল্লা বোর্ডে বেড়েছ প্রায় ৬ হাজার, বরিশালেও ৬ হাজারের মতো পুন:নিরীক্ষণের আবেদনের সংখ্যা বেড়েছে। দিনাজপুর বোর্ডে বেড়েছে প্রায় ১৬ হাজার আবেদন।

এদিকে মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে ১০ হাজারের মতো ফল পুন:নিরীক্ষণের আবেদন জমা পড়েছে বলে জানা গেছে।

২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ১২ লাখ ৩ হাজার ৬৪০ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। ৮ আগস্ট প্রকাশিত ফলাফলে ৮ লাখ ৯৯ হাজার ১৫০ জন পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়। পাসের হার ছিল ৭৪.৭০ শতাংশ।

সূত্রঃ দৈনিক শিক্ষা

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Posts 4144
Post Views 345