MysmsBD.ComLogin Sign Up

এক বছরের শিশু যখন 'মা'!

In সাধারন অন্যরকম খবর - Aug 11 at 12:35pm
এক বছরের শিশু যখন 'মা'!

মেয়েটির বয়স মাত্র এক বছর, আর ওজন মাত্র ৮ কেজি। কিন্তু সেই মেয়েই সাড়ে তিন কেজি ওজনের এক সন্তানের জন্ম দিয়েছে! এরকমই একটি ঘটনা ঘটেছে তামিলনাড়ুর মেট্টুপালায়ামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে।

বিষয়টি অদ্ভুত হলেও চিকিৎসাবিজ্ঞানে এই ধরনের ঘটনা ঘটে। চিকিৎসাবিজ্ঞানের পরিভাষায় এ রকম ঘটনাকে বলা হয় ফেটাস ইন ফেটু, অর্থাৎ একটি শিশুর মধ্যে আরেকটি শিশুর ভ্রুণ বেড়ে ওঠা।

কোনও শিশু গর্ভে থাকাকালে তার যমজ ভাই বা বোনের ভ্রূণ আলাদাভাবে বেড়ে না উঠে অনেক সময় ওই শিশুটির শরীরেই বেড়ে উঠতে থাকে। পরে সেই শিশুর জন্ম হওয়ার পরেও অনেক সময় তার শরীরের ভেতরে স্থাপিত সেই ভ্রূণের বৃদ্ধি অব্যাহত থাকে।

তখন অপারেশনের মাধ্যমে বের করে আনতে হয় সেই ভ্রূণটিকে। ফলে বিষয়টি একটি সন্তানের জন্মলাভেরই চেহারা নেয়। ৫ লাখ শিশু জন্ম নিলে তাদের মধ্যে মাত্র একজনের মধ্যে ফেটাস ইন ফেটু দেখা যায়।

তামিলনাড়ুর শ্রমিক রাজু ও সুমতির মেয়ে নিশা ছিল তেমনই। ছোটবেলা থেকেই নিশার পেটটা ছিল স্বাভাবিকের তুলনায় একটু বড়। রাজু আর সুমতি বিষয়টিকে গুরুত্ব না দিলেও কিন্তু দিন দিন নিশার পেট বাড়তেই থাকে।

শ্বাস-প্রশ্বাস ও খাওয়া-দাওয়ার ক্ষেত্রেও সমস্যা দেখা দিতে শুরু করে। রাজু আর সুমতি মেয়েকে নিয়ে যান ডাক্তারের কাছে।

ডাক্তার ডি বিজয়গিরি শিশুটিকে আলট্রাসনোগ্রাফি ও স্ক্যান করে দেখেন, নিশার পেটের ভেতর বেড়ে উঠছে একটি ভ্রুণ, যা নিশারই শরীরের রক্তে ও খাদ্যে পুষ্ট হয়ে উঠছে।

ডাক্তার অপারেশনের সিদ্ধান্ত নেন। তিনি জানিয়েছেন, অপারেশনটি মোটেই সহজ ছিল না। কারণ নিশার গর্ভস্থ ভ্রূণটির সঙ্গেই জড়িয়ে ছিল নিশার বাম কিডনি, প্যানক্রিয়াসের মতো অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ।

কিন্তু সৌভাগ্যবশত ডাক্তাররা সেই অপারেশনে সফল হন। নিশার পেট থেকে বের করা হয় সাড়ে তিন কেজি ওজনের ভ্রূণটিকে। নিশা এখন বিপদমুক্ত। খুশি রাজু আর সুমতিও।

Googleplus Pint
Noyon Khan
Posts 3544
Post Views 921