MysmsBD.ComLogin Sign Up

তিন বোনকে ধর্ষণ, চিকিৎসক গ্রেফতার

In আন্তর্জাতিক - Aug 08 at 7:15pm
তিন বোনকে ধর্ষণ, চিকিৎসক গ্রেফতার

চিকিৎসা দেয়ার সুযোগকে ব্যবহার করে একে একে তিন বোনকে ধর্ষণ করেছেন একজন নিউরো-লিঙ্গুস্টিক প্রোগ্রামিং (এনএলপি) থেরাপিস্ট। ঘটনা জানাজানি হলে ওই চিকিৎসককে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এমন ঘটনার জন্ম দিয়েছেন ইসরাইলের ৫০ বছর বয়সী থেরাপিস্ট আলোন শামির। দুই সপ্তাহ আগে তাকে গ্রেফতার করে হাজতে রাখা হয়েছিল। রোববার অভিযোগ গঠনের পর তাকে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

অভিযোগপত্র থেকে জানা যায়, আলোন শামির ওই তিন বোনের পরিবারের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ ছিল। ২০১৫ সালে নিপীড়িত তিন বোন নিজেদের দুঃখজনক অভিজ্ঞতার কথা পরষ্পরের সঙ্গে বলাবলির পর শামিরের জঘন্য চরিত্রের বিষয়টি ফাঁস হয়ে যায়।

২০০৬ সালে শামিল ইমেজারি থেরাপিস্ট হিসেবে ধর্ষিত তিন বোনের মধ্যে সবার বড়জনের চিকিৎসা শুরু করেন। ওই সময় মেয়েটির বয়স ছিল ১৭ বছর।

পরে ২০১৩ সালে শামির এনএলপি থেরাপিস্ট হিসেবে উত্তীর্ণ হন। এর পরের বছর তিনি দ্বিতীয় বোনের চিকিৎসা শুরু করেন। সর্বশেষ ২০১৫ সালে তিনি তৃতীয় বোনটির চিকিৎসা করেন।

চিকিৎসাকালে শামির তিন বোনকে পর্যায়ক্রমে ধর্ষণ করে। বর্তমানে বোনদের বয়স যথাক্রমে ২৭, ২৫ ও ২০ বছর।

জানা গেছে, থেরাপিস্ট শামির রোগীদের সঙ্গে তার বাড়ি, পার্ক ও গাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে দেখা করতেন। এ সময় থেরাপি দেয়ার নাম করে নারী রোগীদের ফাঁদে ফেলে যৌন সম্পর্ক করতেন। যাদের ক্ষেত্রে পারতেন না তাদের মারধর ও ধর্ষণ করতেন।

অবশ্য শামিরের আইনজীবী শিরান গোলবারির দাবি, তিনি নিদোর্ষ, আমরা নিশ্চিত তথ্যপ্রমাণের মাধ্যমেই সব কিছু স্পষ্ট হবে এবং তিনি অভিযোগমুক্ত হবেন।

উল্লেখ্য, এনএলপি থেরাপির কোনও বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। বিশেষজ্ঞদের মতো এটি বিজ্ঞানের নামে প্রতারণা।

তথ্যসূত্রঃ যুগান্তর

Googleplus Pint
Anik Sutradhar
Posts 6742
Post Views 812