MysmsBD.ComLogin Sign Up

Search Unlimited Music, Videos And Download Free @ Tube Downloader

সাদা পোশাকের ব্যাটসম্যান তারা

In ক্রিকেট দুনিয়া - Jul 31 at 2:29pm
সাদা পোশাকের ব্যাটসম্যান তারা

বিশ্ব ক্রিকেটে এখন স্বল্প পরিসরের ক্রিকেটের রাজত্ব। আরো নির্দিষ্ট করে বললে টি-টুয়েন্টির রাজত্ব। মার মার কাট কাট ঘরানার এই ফরম্যাট যেমন দিনে দিনে তুমুল দর্শকপ্রিয় হয়ে উঠছে, তেমনি দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেট বিশেষ করে টেস্ট ক্রিকেটের দর্শক কমছে রীতিমত আশঙ্কাজনক হারে।

বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের কাছে হালের আইপিএল, বিগ ব্যাশ যতটা আকর্ষণীয়, টেস্ট ক্রিকেট ঠিক ততটাই সাদামাটা। তারপরও টেস্ট ক্রিকেট-ই যে ক্রিকেটের আসল রূপ তা অস্বীকার করার কোন সুযোগ নেই।

একটি বই যেমন তার মলাট দেখে বিচার করা যায় না, তেমনি শুধু মাত্র টি-টোয়েন্টির পারফরম্যান্স দেখেই একজন খেলোয়াড়কে বিচার করাটা প্রকৃত ক্রিকেট ভক্তের কাজ নয়। টেস্ট ক্রিকেটই প্রমাণ করে একজন খেলোয়াড়ের সত্যিকারের ক্রিকেটীয় দক্ষতা।

কিছু খেলোয়াড়ের যেন জন্মই হয়েছে টেস্ট ক্রিকেটে দাপিয়ে বেড়ানোর জন্য। সাদা পোশাকে তারা যতটা উজ্জ্বল রঙিন পোশাকের ক্রিকেটে ঠিক ততটাই বিবর্ণ তাদের ক্যারিয়ার। টেস্ট ক্রিকেটে নিজেকে কিংবদন্তীর পর্যায়ে নিয়ে গিয়েও অন্য ফরম্যাটে দলেই সুযোগ পান না কিংবা পেতেন না এরকম খেলোয়াড়ের সংখ্যা নেহাত কম নয়।

• এক নজরে দেখে নিন তাদের মধ্যে সর্বকালের সেরা পাঁচজন.....

১. শিবনারায়ন চন্দরপল :
সম্ভবত আধুনিক ক্রিকেটের সবচেয়ে আন্ডাররেটেড খেলোয়াড়দের একজন এই ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ব্যাটিং কিংবদন্তী। নিজের সেরা সময়টাতে সবসময়ই থেকেছেন শচিন টেন্ডুলকার, রিকি পন্টিং, সাঙ্গাকারা এসব বড় বড় নামের আড়ালে। এমনকি নিজের দেশের ক্রিকেট বোর্ডের কাছ থেকেও প্রত্যাশিত ব্যবহারটুকু পাননি। কিন্তু নিজের কাজটা ঠিকঠাক মতো চালিয়ে গেছেন নিয়মিতই। টেস্টে ২৮০ ইনিংসে ৫১ গড়ে ১১ হাজার ৮৬৭ রান করার পথে ৩০ সেঞ্চুরি অন্তত সে কথাই বলে। স্বল্প পরিসরে নামের প্রতি অতোটা সুবিচার করতে না পারলেও চন্দরপলকে সর্বকালের অন্যতম সেরা ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যান হিসেবে সবসময়ই মনে রাখবে ক্রিকেট বিশ্ব।

২. ভিভিএস লক্ষণ :
ছয় নম্বরে ব্যাটিং করতে নামতেন হায়দারাবাদে জন্ম নেওয়া এই ব্যাটিং জিনিয়াস। খুব কম সময়ই দলের সুবিধাজনক অবস্থায় নামার সুযোগ হত। বেশিরভাগ সময়েই প্রাথমিক বিপর্যয় কাটিয়ে তোলার দায়িত্ব পড়ত এই টেস্ট স্পেশালিস্টের উপর। এমন অবস্থা থেকে কতবার যে ভারতীয়দের শেষ হাসি হাসিয়েছেন তার কোন ইয়ত্তা নেই। শেবাগ, গাঙ্গুলি, শচিন, দ্রাবিড়দের মত মহাতারকায় ঠাসা দলেও নিজের জায়গাটুকু পাকাপোক্ত করে নিয়েছিলেন একদম অবসরের দিনটি পর্যন্ত। ছয় নম্বরে ব্যাট করতে নেমে প্রায় ৪৬ গড়ে ৮ হাজার ৭৮১ রান নিঃসন্দেহে তার উইলো হাতে জাদুরই প্রমাণ।

৩. অ্যালিস্টার কুক :
ভারতের বিপক্ষে অভিষেক টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে সারা ক্রিকেট বিশ্বকে নিজের উপস্থিতি জানান দিয়েছিলেন। সেই থেকে আর পিছু ফিরে থাকাতে হয়নি। সাদা পোশাকে ধারাবাহিকতার প্রতিমূর্তি হয়ে উঠা অ্যালিস্টার কুক এখন ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়ক। ৩১ বছর বয়সেই ৪৬.৮৩ গড়ে ২৩৫ ইনিংসে তার রান এখন ১০ হাজার ৪৪৬। শচিনকে টপকে টেস্টে সর্বকনিষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে দশ হাজার রানের এলিট ক্লাবে পৌঁছেছেন বেশ কিছুদিন আগে। এখনো ক্রিকেটকে অনেক কিছুই দেওয়ার বাকি তার। অবসরের আগে নিজেকে আরো কত উচ্চতায় নিয়ে যেতে পারেন অ্যালিস্টার কুক সেটিই এখন দেখার বিষয়

৪. জাস্টিন ল্যাঙ্গার :
প্রায় এক যুগ ধরে পুরো ক্রিকেট বিশ্ব শাসন করা অস্ট্রেলিয়া দলের নিয়মিত ওপেনার ছিলেন। তার অন্তর্ভূক্তির কারণে একদিনের ম্যাচের নিয়মিত ওপেনার, কিংবদন্তি গিলক্রিস্টকে টেস্টে ব্যাট করতে হত ছয় নম্বরে। ১৮২ ইনিংসে ৬ হাজার ৬৯৬ রান, ৪৫ গড় আর সর্বোচ্চ ২৫০ রানের ইনিংস এই কয়েকটি পরিসংখ্যানই নিঃসন্দেহে জাস্টিন ল্যাঙ্গারের ব্যাটিং দক্ষতা প্রমাণে যথেষ্ট। অন্য ফরম্যাটে হয়ত খুব একটা সরব উপস্থিতি ছিল না কিন্তু নিজের প্রতিভা আর পরিশ্রম দিয়ে আপাদমস্তক টেস্ট খেলোয়াড় হিসেবে খুব ভালোভাবেই নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন ল্যাঙ্গার।

৫। জিওফ্রে বয়কট :
বর্তমান প্রজন্ম হয়তো জিওফ্রে বয়কটকে চেনে ধারাভাষ্যকার হিসেবে। কিন্তু আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অভিষেকের পর নিজের ব্যাটিং দিয়েই বিশ্বকে নিজের জাত চিনিয়েছিলেন এই ইংল্যান্ড কিংবদন্তি। দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেটে তার হিসেবি ব্যাটিং ছিল দেখার মত। বলের গুনাগুন বাছাই করে খেলাকে রীতিমত শিল্পের রূপ দেয়া এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান ওয়েস্ট ইন্ডিজ পেস অ্যাটাকের স্বর্ণযুগেও ২২ শতক আর ৪২ অর্শশতকে করেছেন ৮ হাজার ১১৪ রান। ঈর্ষনীয় ৪৭.৭২ গড় ।

তথ্যসূত্রঃ রাইজিংবিডি

Googleplus Pint
Anik Sutradhar
Posts 6778
Post Views 324