MysmsBD.ComLogin Sign Up

পাকাকরণের দাবিতে রাস্তায় ধানের চারা রোপন!

In দেশের খবর - Jul 31 at 8:52am
পাকাকরণের দাবিতে রাস্তায় ধানের চারা রোপন!

নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার রজয়পুর গ্রামে একমাত্র রাস্তাটি মাটির বলে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে একশ’ হিন্দু পরিবারের। দীর্ঘ দিন থেকে রাস্তাটি পাকাকরণের দাবি জানানো পরও সরকারি কোন উদ্যোগ চোখে না পড়ায় শুক্রবার দুপুরে শিক্ষার্থী ও গ্রামবাসী রাস্তার উপর বেশ কিছু অংশে ধানের চারা লাগিয়ে প্রতিবাদ জানান।

সরজমিনে জানা যায়, রজয়পুর গ্রামে প্রায় একশ’ হিন্দু পরিবারে চারশ’ জন লোকের বসবাস। এখানে প্রায় ২০ বছর আগে এক কিলোমিটার দূরত্বের একটি কাঁচামাটির রাস্তা নির্মাণ করা হয়। রাস্তাটি বাঁকাচারা হয়ে পাতনা রাস্তায় যুক্ত হয়। খরা মৌসুমে চলাচল করা গেলেও বর্ষা মৌসুমে কয়েক মাস হাঁটু পর্যন্ত কাদা হয়ে যাওয়ায় রাস্তাটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে।

গ্রামের মানুষদের প্রতিদিন মহাদেবপুর, নওগাঁসহ বিভিন্ন স্থানে চলাচল করতে ব্যাপক ভোগান্তি পোহাতে হয়। এদিকে তারা বর্ষার এই কয়েক মাস ধান, সবজিসহ অন্যান্য ফসলের নায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হয়ে থাকেন। দীর্ঘদিন থেকে এই এক কিলোমিটার রাস্তা পাকাকরণ করা দাবি জানিয়ে আসেন এলাকাবাসি। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি।

গ্রামের বয়স্ক বিজয় মন্ডল (৭৫) জানান, তাদের গ্রামের পাশ্ববর্তী দেড়-দুই কিলোমিটার দূরে পাতনা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও হাট-চকগৌরী উচ্চ-বিদ্যালয়। গ্রামের প্রায় ৮০ জন শিক্ষার্থী চরম দুর্ভোগের মধ্যে দিয়ে এই রাস্তা দিয়ে বিদ্যালয়ে যাওয়া আসা করছে। এ গ্রামের শিক্ষার্থী ও গ্রামবাসীরা কাদাপানির হাত থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য অর্থাৎ রাস্তা পাকাকরণের দাবিতে রাস্তার উপর ধানের চারা রোপন করেছেন ।

হাট-চকগৌরী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী পঙ্কজ কুমার, পাতনা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির পূজারানী, ২য় শ্রেণির সাথী রানী ও সুমনসহ গ্রামের কয়েকজন শিক্ষার্থী জানায়, কাদামাটির মধ্যে দিয়ে বিদ্যালয়ে যেতে গিয়ে অনেক সময় শিক্ষার্থীরা পড়ে যায়। সেখান থেকে তখন আবার বাড়ি ফিরে আসতে হয়।

অক্ষয় কুমার ক্ষোভের সাথে বলেন, এ গ্রামে শুধু আমরা হিন্দু ধর্মের লোকজন বসবাস করি। হয়ত এ জন্যেই আমাদের চলাফেরা করার একমাত্র রাস্তাটি সংস্কারের জন্য কেউ উদ্যোগ নিচ্ছেন না।

পরেশ চন্দ্র হাজরা জানান, আমরা বছরের পর বছর ধরে হাটু-সমান কাদার উপর দিয়ে চরম দূর্ভোগের মধ্যেই চলাফেরা করলেও এখন পর্যন্ত কোন জনপ্রতিনিধি বা সরকার উদ্যোগ নেয়নি।

স্থানীয় ভীমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রামপ্রসাদ ভদ্র জানান, এ ব্যাপারে উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

স্থানীয় সংসদ সদস্য সেলিম উদ্দিন তলফদার জানান, রাস্তার কারণে গ্রামবাসীর ব্যাপক সমস্যা হয়ে থাকে। রাস্তাটি পাকাকরণ করতে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

Googleplus Pint
Noyon Khan
Posts 3488
Post Views 123