MysmsBD.ComLogin Sign Up

[Trick] Uc Browser দিচ্ছে ৪০০০টাকা করে বিকাশে। বাংলাদেশ থেকে প্রথম থেকে ৪০০০ জন পাবে ৪০০০ টাকা করে ।

বিশ্বের উষ্ণতম ১৩ স্থানের কথা জেনে নিন!

In জানা অজানা - Jul 28 at 10:24am
বিশ্বের উষ্ণতম ১৩ স্থানের কথা জেনে নিন!

বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে উচ্চ তাপের জন্য মানুষের বসবাসের জন্য অত্যন্ত দুরূহ। এ ধরনের স্থানগুলোর বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করছে মার্কিন সংস্থা নাসা। তাদের স্যাটেলাইট উপাত্ত অনুসারে বিশ্বের উষ্ণতম স্থানগুলোর মধ্যে রয়েছে ইথিওপিয়া থেকে শুরু করে ইরান পর্যন্ত নানা স্থানের নাম।

এ লেখায় তুলে ধরা হলো বিশ্বের সবচেয়ে উষ্ণ সেসব স্থানের তথ্য। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার।

১. দাল্লোল, ইথিওপিয়া
ইথিওপিয়ার দাল্লোল অঞ্চল শুধু উষ্ণই নয়, এ অঞ্চলে রয়েছে জীবন্ত আগ্নেয়গিরিও। ফলে ১৯৬০ সালে এ অঞ্চলটি খনি শহর থাকলেও এখন তা ভুতুড়ে শহরে পরিণত হয়েছে। ১৯৬০ থেকে ১৯৬৬ সাল পর্যন্ত এ অঞ্চলটির তাপমাত্রা ছিল গড়ে ৯৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট। তবে দিনের বেলা প্রায়ই এখানে তাপমাত্রা ১০০ ডিগ্রি ফারেনহাইট ছাড়ায়।

২. কোবের পেডি, অস্ট্রেলিয়া
অস্ট্রেলিয়ার কোবের পেডি অঞ্চলটি অত্যন্ত গরম হলেও এখানে মানুষ বাস করে। তবে এ অঞ্চলের অধিবাসীরা গরম থেকে বাঁচতে মাটির নিচেই গর্ত করে বাসা বানায়। এখানে দিনের বেলা তাপমাত্রা প্রায়ই ১১৩ ডিগ্রি ফারেনহাইট হয়ে যায়।

৩. এল আজিজিয়া, লিবিয়া
লিবিয়ার এল আজিজিয়া অঞ্চলটি বিশ্বের অন্যতম উষ্ণ অঞ্চল। এখানে দিনের বেলা প্রায়ই তাপমাত্রা ১২০ ডিগ্রি ফারেনহাইট হয়ে যায়। তবে অতীতে এ অঞ্চলের তাপমাত্রা আরও বেশি থাকার কথা জানা যায়। সে সময় এখানকার তাপমাত্রা মাপার ব্যবস্থাটি সঠিক নয় বলে প্রমাণিত হওয়ায় তা আর বিবেচনা করা হয় না।

৪. ওয়াদি হালফা, সুদান
সুদানের এ অঞ্চলটি মিসর সীমান্ত সংলগ্ন। এ শহরটিতে তাপমাত্রা প্রায়ই ১২৭ ডিগ্রি ফারেনহাইটে পৌঁছায় বলে জানা যায়। এ শহরটিতে প্রায়ই অত্যন্ত ঘন ধূলিঝড় বয়ে যায়, যার নাম হাব্বু।

৫. তিরাট জিভি, ইসরায়েল
ইসরায়েলের তিরাট জিভি অঞ্চলটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে অনেক নিচু হওয়ার পরেও এটি শুষ্ক। জানা যায়, এ অঞ্চলটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৭২২ ফুট নিচে অবস্থিত। এ অঞ্চলের তাপমাত্রা অত্যন্ত বেশি। বিশেষ করে গ্রীষ্ককালে এখানে তাপমাত্রা খুবই বেড়ে যায়। ১৯৪২ সালে এখানে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১২৯ ডিগ্রি ফারেনহাইট।

৬. তিমবুকতু, মালি
প্রাচীন সাহারান বাণিজ্য পথের মাঝে পড়েছে আফ্রিকার দেশ মালির এ স্থানটি। নিকটবর্তী সাহারা মরুভূমি এ অঞ্চলটিকে ধীরে ধীরে গ্রাস করছে। এখানকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১৩০ ডিগ্রি ফারেনহাইট।

৭. গ্যাডামেস, লিবিয়া
লিবিয়ার এ উষ্ণতম অঞ্চলটি ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। এ অঞ্চলটি মরুভূমির মাঝে মরুদ্যানের মতো। তবে এখানকার তাপমাত্রা মোটেও কম নয়। এখানে ১৩১ ডিগ্রি ফারেনহাইট পর্যন্ত তাপমাত্রা উঠতে দেখা যায়।

৮. কেবিলি, তিউনিসিয়া
তিউনিসিয়ার মরুভূমি অঞ্চলের মাঝে এটি একটি শহর। এখানে দুই লাখ বছর আগেও প্রাণী বসবাসের চিহ্ন রয়েছে।

এ স্থানের তাপমাত্রা ১৩১ ডিগ্রি পর্যন্ত হওয়ার রেকর্ড রয়েছে।

৯. রুব’আল খালি, আরব পেনিনসুলা
রুব’আল খালি আরব অঞ্চলের মরুভূমি, যা বিশ্বের বৃহত্তম হিসেবে পরিচিত। এ মরুভূমির তাপমাত্রা অত্যন্ত বেশি।

এখানে ১৩৩ ডিগ্রি ফারেনহাইট পর্যন্ত তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। এ অঞ্চলে বার্ষিক গড়ে মাত্র ১.২ ইঞ্চি বৃষ্টিপাত হওয়ায় এখানকার বাতাসও অত্যন্ত উষ্ণ।

১০. ডেথ ভ্যালি, যুক্তরাষ্ট্র
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডেথ ভ্যালি বিশ্বের উষ্ণতম স্থান হিসেবে প্রসিদ্ধ। এখানে ১৯১৩ সালে ১৩৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। উত্তর আমেরিকার শুষ্কতম স্থানও এটি।

১১. ফ্লেমিং মাউন্টেন, চীন
চীনের ফ্লেমিং মাউন্টেন জিনজিয়ান রাজ্যের অন্তর্গত। এখানে টাকলিমাক্যান মরুভূমি অবস্থিত। নাসার স্যাটেলাইটে এখানে ২০০৮ সালে ১৫২.২ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়।

১২. কুইন্সল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া
অস্ট্রেলিয়ার বহু স্থান অত্যন্ত উষ্ণ। তবে সেখানে জনসংখ্যা কম হওয়ায় বহু স্থানের সঠিক তাপমাত্রা মাপা হয় না। ২০০৩ সালে নাসার স্যাটেলাইট চিত্র অনুযায়ী দেখা যায় এ অঞ্চলের একটি স্থানের তাপমাত্রা ১৫৬.৭ ডিগ্রি ফারেনহাইটে পৌঁছেছে।

১৩. ডাস্ত-ই লুট মরুভূমি, ইরান
ইরানের ডাস্ত-ই লুট মরুভূমি প্রায় ২০০ মাইল এলাকা বিশ্বের সবচেয়ে শুষ্ক ও উষ্ণ স্থান হিসেবে বিবেচিত। এ অঞ্চলে জীবনধারণের জন্য এত বিরূপ পরিস্থিতি রয়েছে যে, এখানে কেউ বসবাস করতে পারে না। এমনকি ব্যাকটেরিয়াও এ অঞ্চলে বাস করতে পারে না। মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থার মতে এ অঞ্চলের তাপমাত্রা ১৫৯.৩ ডিগ্রি পর্যন্ত উঠতে দেখা গেছে।

[Trick] Uc Browser দিচ্ছে ৪০০০ টাকা করে বিকাশে। বাংলাদেশ থেকে প্রথম থেকে ৪০০০ জন পাবে ৪০০০ টাকা করে ।

Googleplus Pint
Noyon Khan
Posts 3450
Post Views 387