MysmsBD.ComLogin Sign Up

যে গ্রামে ধর্ষণের জন্য দেওয়া হয় পারিশ্রমিক!

In সাধারন অন্যরকম খবর - Jul 23 at 9:05pm
যে গ্রামে ধর্ষণের জন্য দেওয়া হয় পারিশ্রমিক!

এখন আমরা এমন একটা সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি যেখানে যৌন সহিংসা একটা কমন ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ মেয়েদের বাবা-মায়েরা তাদের রাস্তায় বেরোতেদিতে ভয় পান৷ এর মাঝেও এমনও এক জায়গা রয়েছে এই ভূবনে যেখানকার বাবা-মায়েরা ও পরিবার মেয়েদের স্বেচ্ছায় ধর্ষিতা হতে পাঠায়৷

এই অবাক করা বিরল ঘটনাটি দিনের পর দিন ঘটে চলেছে মালাউই-এর দক্ষিণাঞ্চলের এক গ্রামে৷ ওই স্থানে এই জঘন্য ঘটনাটিকে ‘রীতি’ র নাম করে চালানো হচ্ছে৷ মেয়েদের প্রথম পিরিয়ডের পর তাদের একটি নির্দিষ্ট পুরুষের কাছে পাঠানো হয়৷ ওই ব্যক্তিটি ‘হায়না’ নামে পরিচিত৷

সংবাদ সংস্থা বিবিসি সূত্রে জানা গিয়েছে ওই গ্রামে হায়নার আগেও একজন এই একই কাজ করত৷ দক্ষিণাঞ্চলের মালাউই গ্রামে হায়না নামক ব্যক্তিটিকে ‘যৌন শোধক’ হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে এরিক অ্যানিভা নামের এই ব্যক্তিকে৷

এই কাজ করার জন্য তাকে পারিশ্রমিক দেওয়া হয়৷ যখন ওই গ্রামের কোনও মহিলার স্বামী মারা যায় তখন তার স্বামীকে দাহ করার আগেই তার যৌন শুদ্ধকরণ করানোর জন্য তাকে হায়নার কাছে পাঠানো হয়৷ যদি কোনও মহিলা গর্ভপাত করায় তাহলে তাকেও পাঠানো হয় হায়নার কাছে৷

এমনকি মেয়েদের প্রথম পিরিয়ডের পর হায়নার কাছে পাঠানো হয়৷ এটা প্রমাণ করার জন্য যে সে নারীত্বতে প্রবেশ করেছে৷ ওখানকার সম্প্রদায় এই ব্যাপারটিকে ধর্ষণ বলতে নারাজ তাদের কাছে এটা তাদের ‘রীতি’৷

এই প্রসঙ্গে ওখানকার একটি মেয়ে জানিয়েছে আমার কিছুই করার নেই, আমার বাবা-মায়ের ইচ্ছেতেই আমি গিয়েছিলাম৷ নাহলে আমার বাবা-মা অসুস্থ হয়ে পরবে এমনকি মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারত ওদের৷ তাই আমি ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম হায়নার কাছে৷

এমনকি এখানকার রীতি অনুযায়ী সেক্স করার সময় কোনো কন্ডোম ব্যবহার করা হয় না৷ তারফলে হায়নার এইচ আইভিও পজিটিভ আছে, এই ব্যাপার নিয়ে গ্রামের মানুষরা কিছুই জানে না৷ এইচ আইভি পজিটিভ সম্পর্কে তাদের কোনও জ্ঞানই নেই৷

আর হায়নাও তার এই রোগ সম্পর্কে গ্রামের মানুষদের জানাতেও চায় না৷ সে এই গ্রামের ১০৪ জন মহিলাসহ মেয়েকে ধর্ষণ করেছে৷গ্রামের মানুষরা এই বিষয়টির মধ্যে কোনও ভুলই দেখেন না৷ তাদের কাছে এটা একটা বিশেষ প্রথা৷

Googleplus Pint
Anik Sutradhar
Posts 7085
Post Views 2056