MysmsBD.ComLogin Sign Up

দারুণ যোগাযোগ গড়তে চাইলে ৮ গোপন মন্ত্র জেনে নিন

In লাইফ স্টাইল - Jul 20 at 7:23pm
দারুণ যোগাযোগ গড়তে চাইলে ৮ গোপন মন্ত্র জেনে নিন

যোগাযোগের প্রশ্নে আমরা অনেকেই আনাড়ি। কিন্তু কিছু উপায়ে এ আনাড়িপনা দূর করে যোগাযোগ দারুণ দক্ষ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করা যায়।

• এ লেখায় তুলে ধরা হলো যোগাযোগে দারুণ দক্ষ হওয়ার কয়েকটি উপায়....

১. গ্রুপ নয় ব্যক্তি হিসেবে কথা বলুন
একজন নেতা হিসেবে আপনাকে নিজেকেই প্রত্যেক ব্যক্তির সঙ্গে যোগাযোগ করার গুণ আয়ত্ব করতে হবে। এমনভাবে কথা বলতে হবে যেন সবাই মনে করে আপনি তার সঙ্গে কথা বলছেন। আপনি একজনের সঙ্গে কথা বলুন কিংবা লক্ষ মানুষের সঙ্গে কথা বলুন না কেন, বিষয়টি খুবই সাধারণ। এক্ষেত্রে আপনার বক্তব্যে অনুভূতি প্রকাশ, সম্ভাষণ কিংবা ঘটনার বর্ণনা যাই থাকুক না কেন, প্রত্যেকে যেন মনে করে আপনি তার সঙ্গে কথা বলছেন।

২. কথা বলুন সতর্কভাবে
আপনি যদি সতর্কভাবে মূল্যবান কথাবার্তা বলেন তাহলে স্বভাবতই মানুষ তা মনোযোগ দিয়ে শুনবে। অন্যদিকে আপনি যদি কথা বলার সময় পর্যাপ্ত সতর্ক না থাকেন তাহলে আপনার শ্রোতারাও সতর্ক হবে না। তাই শ্রোতারা কী শুনতে চাইছেন সেদিকে মনোযোগ দিন। প্রয়োজন অনুযায়ী তথ্য সংগ্রহ করুন এবং প্রস্তুতি নিয়ে কথা বলুন। এতে উভয়ের মাঝে দারুণ যোগাযোগ তৈরির পথ সুগম হবে।

৩. চুপ করে শুনুন
শুধু বকবক করে গেলেই হবে না, অন্যের কথা শুনতেও হবে। অন্যরা কী বলছেন তা যদি আপনি না শোনেন তাহলে আপনার কথাও কেউ শুনবে না। তাই অন্যের কথা শোনার জন্য সম্পূর্ণ চুপ হতে হবে। অন্যের কথা শোনার পর সে সম্পর্কে যথাযথ প্রত্যুত্তর দেওয়া প্রয়োজন হবে। এভাবে উভয়ের মাঝে সম্পর্ক গড়ে উঠবে। এতে আপনার বক্তব্যও তারা গ্রহণ করবে।

৪. আবেগগতভাবে সম্পর্ক গড়ুন
আবেগের সম্পর্ক গড়ে তোলা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আপনার সঙ্গে অন্য মানুষের কতটা আবেগগতভাবে সম্পর্ক গড়ে উঠেছে এটি জানতে পারলে আপনার যোগাযোগের দক্ষতাও মাপা সম্ভব। আপনি অন্য মানুষের সঙ্গে কী কথা বলেছেন তা প্রায়েই মানুষ মনে রাখতে পারবে না। কিন্তু তা যদি হয় কোনো আবেগগত বিষয় তাহলে সহজেই মানুষ সে বিষয়টি মনে করতে পারবে। তবে সহজেই আপনি এ আবেগগত সম্পর্ক গড়তে পারবেন না। এজন্য আপনাকে হতে হবে স্বচ্ছ। নিজের মতামত প্রকাশে হতে হবে কৃত্রিমতাহীন।

৫. দেহের ভাষা
অন্য মানুষের দেহের ভাষা সঠিকভাবে অনুধাবন করার গুরুত্ব রয়েছে। আপনি এ কাজটি সঠিকভাবে করতে পারলে তাদের মনের মাঝে কী রয়েছে তাও অনুমান করতে পারবেন। আপনার সঙ্গে অন্য একজনের যতই ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকুক না কেন, তার না বলা কথাটি আপনার বুঝে নেওয়া জরুরি। অন্যথায় উভয়ের মাঝে দূরত্ব তৈরি হতে পারে। মানুষের দেহের ভাষা প্রতিনিয়ত পরিবর্তিত হয়। এ ভাষাকে সঠিকভাবে বুঝে নিতে হলে চাই যথাযথ চেষ্টা। এজন্য যথাসম্ভব মনোযোগ দিয়ে আপনার সামনে থাকা মানুষের দেহের ভাষা বোঝার চেষ্টা করুন। এতে আপনি নতুন এক দিগন্তের সন্ধান পাবেন, যা ব্যবহার করে দারুণ যোগাযোগ স্থাপন করতে পারবেন।

৬. প্রস্তুতি নিন
একেবারে অপ্রস্তুত অবস্থায় কোনো কাজই ভালো হয় না। আপনি যদি বন্ধুদের সামনে একটি বিষয় বর্ণনা করতে চান তাহলেও প্রস্তুতির প্রয়োজন রয়েছে। অন্যথায় আপনার কথাকে কেউ পাত্তাই দেবে না। একইভাবে কারো সঙ্গে দারুণভাবে যোগাযোগ স্থাপনের জন্য তার সম্পর্কে জেনে নিন। নিজের আগ্রহের কথা জানান। আগে থেকেই কিছুটা প্রস্তুতি এক্ষেত্রে দারুণ কাজে দেবে।

৭. অপভাষা বাদ দিন
কিছু অপশব্দ রয়েছে যার নির্দিষ্ট ক্ষতি নেই। কিন্ত শব্দগুলো গাল হিসেবেই ব্যবহৃত হয়। এ ধরনের শব্দ ব্যবহার করা আপনার জন্য ক্ষতিকর। ভাষার ক্ষেত্রে একটি সত্যিকার মানসম্মত ভাষা ব্যবহার করা উচিত। আপনি যদি অন্যের সঙ্গে সঠিকভাবে যোগাযোগ স্থাপন করতে চান তাহলে ভাষার বিষয়টি ভুলে গেলে চলবে না। সঠিকভাবে ভাষা ব্যবহার করতে না পারলে আপনার সঙ্গে অন্যদের দূরত্ব তৈরি হবে।

৮. সক্রিয় থাকুন
অন্যের সঙ্গে সঠিকভাবে যোগাযোগ স্থাপনের জন্য কথাবার্তায় সক্রিয়তা আবশ্যক। শুধু রোবটের মতো করে বলে গেলে বা শুনে গেলে চলবে না। কথা শোনার জন্য যেমন মনোযোগী হতে হবে তেমন তা যে আপনার মাথায় ঢুকছে সে বিষয়টিরও জানান দিতে হবে। এজন্য ছোট ছোট প্রশ্ন কিংবা প্রাসঙ্গিক আচরণ করতে হবে। এছাড়া কথাবার্তার সময় কয়েকটি নিয়ম মেনে চললে তা প্রাণবন্ত হয়ে উঠবে। এসব নিয়মের মধ্যে রয়েছে প্রশ্নের উত্তর প্রশ্ন দিয়ে না দেওয়া। নিজের তুলনায় অন্যের দিকে বেশি মনোযোগ দেওয়া, অন্যকে বক্তব্যদানে বিরক্ত করা, বক্তব্য ঠিক না করে বা প্রস্তুতি না নিয়েই কথা বলা ইত্যাদি।

Googleplus Pint
Anik Sutradhar
Posts 6702
Post Views 729