MysmsBD.ComLogin Sign Up

[Trick] Uc Browser দিচ্ছে ৪০০০টাকা করে বিকাশে। বাংলাদেশ থেকে প্রথম থেকে ৪০০০ জন পাবে ৪০০০ টাকা করে ।

তিন উপায়ে ঈর্ষাকে ক্যারিয়ারের উন্নতির কাজে লাগান

In লাইফ স্টাইল - Jul 06 at 3:02pm
তিন উপায়ে ঈর্ষাকে ক্যারিয়ারের উন্নতির কাজে লাগান

আপনি হয়ত কর্মক্ষেত্রে নিজের মধ্যে ঈর্ষাকাতরতা না থাকার বিষয়টি নিয়ে গর্ববোধ করেন এবং ভাবেন কারো প্রতি আপনার ঈর্ষাকাতর হওয়ার কোনো কারণ নেই। কিন্তু একটু গভীরভাবে চিন্তা করলেই দেখবেন, আপনি নিজের সঙ্গে মিথ্যা কথা বলছেন।

একটি নির্দিষ্ট পর্যায় পর্যন্ত কারো প্রতি ঈর্ষাকাতরতা না থাকাটা হয়ত স্বাভাবিক। কিন্তু আমাদের ক্যারিয়ার খুবই প্রতিযোগিতাপূর্ণ। সূতরাং স্বাভাবিক নিয়মেই আপনি যে জায়গায় পৌঁছানোর জন্য কাজ করে যাচ্ছেন কাউকে সেখানে আগেভাগেই পৌঁছাতে দেখে আপনার মধ্যে ঈর্ষার উদ্রেক হবে।

তবে ঈর্ষাকাতরতা স্বাভাবিক হলেও উৎপাদনশীল নয়। এতে বরং আপনার উন্নতির গতি কমে আসবে। তবে আপনি যদি ঈর্ষাকাতরতাকে নিজের উন্নতির গতি বাড়াতে কাজে লাগাতে শিখে যান তাহলে তো অন্য কথা।

শুনে অসম্ভব মনে হচ্ছে? কিন্তু না, বিষয়টি একদমই অসম্ভব নয়। এখানে এমন তিনটি পরিস্থিতি তুলে ধরা হলো, যে পরিস্থিতিগুলোতে আপনি কর্মস্থলে ঈর্ষাকাতরতায় আক্রান্ত হবেন। তবে ওই প্রতিটি পরিস্থিতিকেই আপনি চাইলে আপনার নিজের উৎসাহ-উদ্দীপনা এবং খ্যাতি বৃদ্ধিতে কাজেও লাগাতে পারেন।

কীভাবে? তাহলে পড়ুন…..

১. যখন কারো পদোন্নতি হবে
কোনো সহকর্মীর পদোন্নতি হলে আপনার মাঝে অবশ্যই ঈর্ষার উদ্রেক হবে; এমনকি তিনি যদি আপনার নিজের বিভাগেরও না হন।

আপনার মনে তখন শুধু এই ভাবনা কাজ করবে, আমার পালা আসবে কবে? আমারও তো এখানে অন্তত একধাপ পদোন্নতি পাওয়ার মতো যোগ্যতা রয়েছে!

এই ঈর্ষাকে শক্তিতে রুপান্তরের উপায়
কারো পদোন্নতিতে ঈর্ষাকাতরতায় জ্বলেপুড়ে খাক না হয়ে বরং আপনার উচিত হবে নিজের পরিস্থিতির বিশ্লেষণে মনোযোগ দেওয়া। সুক্ষ্ম বিশ্লেষণের মাধ্যমে ঠিক কী পদক্ষেপ নিলে আপনিও পদোন্নতি পেতে পারেন তা খুঁজে বের করতে হবে।

পদোন্নতি পাওয়া ওই সহকর্মীটি কি আপনার ওই কর্মস্থলে অনেক দিন ধরেই কাজ করছিলেন? তিনি কি তার নির্ধারিত দায়িত্বের বাইরেও কম্পানির জন্য অতিরিক্ত কোনো কাজ করে দেন- যেমন ধরুন তিনি কি কম্পানির বিশেষ বিশেষ কর্মসূচিতে প্রায়ই স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করেন?

যাই হোক না কেন আপনার কাজ হবে ঈর্ষাকাতরাতায় না ভুগে বরং নিজের পরিস্থিতি কঠোরভাবে পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ করা এবং নিজের পদোন্নতির জন্য আপনাকে ঠিক কী পদক্ষেপটি গ্রহণ করতে হবে তা খুঁজে বের করা।

২. যখন কোনো সহকর্মী তার কাজের জন্য প্রশংসিত হবে
ধরুন টিম মিটিংয়ে প্রকাশ্যেই আপনাদের বস আপনার কোনো সহকর্মীর প্রশংসা করলেন। তিনি তাকে এই বলে বাহবা দিলেনে যে, কঠোরভাবে নির্দিষ্ট করে দেওয়া ডেডলাইনের মধ্যেই তিনি উৎকৃষ্ট মানের একটি প্রতিবেদন বের করে নিয়ে এসেছেন।

এতে আপনার মাঝে ঈর্ষার উদ্রেক হওয়াটা অস্বাভাবিক নয়। তবে ঈর্ষাকাতরাতায় না ভুগে বরং আপনি চাইলেই আপনার সময় ও শক্তি এরচেয়ে ভালো কিছুতে ব্যয় করতে পারেন।

এই ঈর্ষাকে শক্তিতে রুপান্তরের উপায়
প্রথমেই ওই সহকর্মীর কঠোর পরিশ্রমের বিষয়টি মেনে নিন। ঈর্ষাকাতর হওয়া সত্ত্বেও আপনিও আরেকজন অনুপ্রেরণাদায়ী দলগত কর্মী হয়ে উঠতে পারেন।

এরপর কী করবেন? প্রশংসিত সহকর্মীর মাথায় মাথা ঠুকে চলার মনোবৃত্তি তৈরি হলে তা প্রতিরোধ করুন। এই ধরনের নিষ্ক্রিয় আক্রমণাত্মক পদ্ধতি শুধু ঝামেলাই পাকাবে এবং আপনাকে পাগলাটে স্বভাবের লোক হিসেবে কুখ্যাতি এনে দিবে।

তারচেয়ে বরং আপনি ওই সহকর্মীকে নিজের জন্য সহায়ক করে তুলতে পারেন। যখনই কোনো বিষয়ে আটকে যাবেন বা বিশেষ কোনো প্রশ্নের উত্তর খুঁজে পেতে কষ্ট হবে তখনই তার দ্বারস্থ হতে পারেন আপনি। কারণ ওই প্রশংসিত সহকর্মী অবশ্যই আপনার চেয়ে বেশিই বোঝেন কী করে একটি প্রকল্প ভালোভাবে সম্পন্ন করা যায়। সূতরাং ঈর্ষাকাতরতায় না ভুগে বরং তার কাছ থেকে শেখাটাই আপনার উন্নতির জন্য সহায়ক হবে।

৩. যখন কোনো সহকর্মীকে বড় কোনো প্রকল্পের দায়িত্ব দেওয়া হবে
ধরুন আপনার বিভাগ বড় কোনো প্রকল্পের দায়িত্ব পেয়েছে। আর আপনার বস এর পুরো দায়িত্ব কার ঘাড়ে দেওয়া যায় তা নিয়ে হয়তো গোপনে আপনাদের সকলকেই পর্যবেক্ষণ করছেন। আপনি নিজেও মনে মনে নিশ্চিত হয়ে বসে রইলেন যে, গুরু দায়িত্বটি হয়তো আপনার ঘাড়েই এসে পড়বে।

কিন্তু বস আপনার নাম ঘোষণা না করে অন্য কারো নাম ঘোষণা করলেন। এতে আপনার বিস্মিত বা ঈর্ষান্বিত হওয়াটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। তবে মনে রাখবেন, ওই সহকর্মী তার যোগ্যতার বলেই দায়িত্বটি পেয়েছেন।

এই ঈর্ষাকে শক্তিতে রুপান্তরের উপায়
গুরু দায়িত্বটি আপনি পাননি তার মানে এই নয় যে, টিমের একজন যোগ্য সদস্য হিসেবে নিজেকে প্রমাণের সুযোগ আপনার হাতছাড়া হয়ে গেছে। কারণ আপনার যে সহকর্মী গুরু দায়িত্বটি পেয়েছেন প্রকল্পটি সম্পন্ন করতে তার কিছু অতিরিক্ত সহায়তারও দরকার হবে। সুতরাং ঈর্ষাকাতরাতায় না ভুগে বরং তার প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিন।

এতে তার সঙ্গে আপনার সম্পর্ক আরো ভালো হবে এবং তার কাছ থেকে নতুন অনেক কিছুই শিখতেও পারবেন আপনি। এ থেকে আপনার বস এবং সহকর্মীদের কাছেও এই বিষয়টি প্রমাণিত হবে যে, আপনিও বড় কিছু করতে চান। এভাবে শিগগিরই আপনিও হয়ত উপযুক্ত কোনো স্বীকৃতি পাবেন।

[Trick] Uc Browser দিচ্ছে ৪০০০ টাকা করে বিকাশে। বাংলাদেশ থেকে প্রথম থেকে ৪০০০ জন পাবে ৪০০০ টাকা করে ।

Googleplus Pint
Anik Sutradhar
Posts 6868
Post Views 238