MysmsBD.ComLogin Sign Up

বর্ষার স্বাস্থ্যবিধি : ১০টি টিপস

In সাস্থ্যকথা/হেলথ-টিপস - Jul 05 at 10:27am
বর্ষার স্বাস্থ্যবিধি : ১০টি টিপস

বর্ষাকালে নানা ধরনের রোগব্যাধি হওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই এই সময়ে নির্দিষ্ট কিছু স্বাস্থ্যবিধি দৈনন্দিন জীবনে মেনে চলতে হয়।

জেনে নিন, কী করবেন আর কী করবেন না....

১) আরও অথবা ইউভি ফিল্টারের পরিস্রুত জল ছাড়া খাবেন না। পরিস্রুত বা ফোটানো জলও ভরে রাখা অথবা ফোটানোর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে খেয়ে নেবেন।

২) রাস্তার খাবার নৈব নৈব চ, বর্ষায় ছোটখাটো ভাতের হোটেলে না খাওয়াই ভাল। যতটা পারা যায় টিফিন ক্যারি করুন। আর যদি বা খাবার খান, ছোটখাটো দোকানের জল খাবেন না।

৩) বৃষ্টিতে ভিজে বাড়ি ফিরলে গরম জল মিশিয়ে ভাল করে সাবান মেখে স্নান করবেন। মাথা যদি বৃ্ষ্টিতে ভিজে যায়, তবে হালকা করে শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নেবেন। বায়ুদূষণের কারণে বৃষ্টির জলে এখন প্রচুর নোংরা এবং কেমিক্যাল থাকে। ধুয়ে না ফেললে একাধিক চর্মরোগ হতে পারে, চুলও উঠতে পারে।

৪) বর্ষায় খুব তাড়াতাড়ি ফাংগাস ধরে যায় খাবারে। তাই দেড়দিনের বেশি পুরনো ফ্রিজের খাবার খাবেন না এবং পাঁউরুটি প্রতিদিন টাটকা কিনে খাবেন। মাংস বা মাছ কাঁচা অবস্থায় দু’দিনের বেশি ফ্রিজে রাখবেন না।

৫) বর্ষায় বাড়িতে প্রচুর পোকামাকড় হয়। দিনে অন্তত একবার বাড়ির সবক’টি নালির মুখে ও ঘরের জানলা-দরজার আনাচে-কানাচে ভাল করে লাল হিট স্প্রে করুন। সবচেয়ে ভাল হয় যদি কেরোসিন তেল ঢেলে দিতে পারেন বাড়ির ভিতরের ও বাইরের নালিতে। এতে মশা-মাছিও কম হবে আর ফাংগাসও হবে না।

৬) রাস্তার জমা জল হল সব থেকে নোংরা এবং রোগজীবাণুর পাওয়ারহাউস। এই জল ঠেলে যদি যেতেই হয়, তবে বাড়ির ভিতরে ঢোকার আগে কোনও ট্যাপ বা টিউবওয়েল থেকে জল নিয়ে আগে ভাল করে পা ধুয়ে নেবেন। তার পরে ওই জামাকাপড় ছেড়ে ঘরের মধ্যে জড়ো করে রাখবেন না। অবশ্যই ডিটারজেন্ট ও ডেটলে ১৫ মিনিট ভিজিয়ে রেখে কেচে নেবেন।

৭) বাড়ির ভিতরটা যেন ড্যাম্প না হয়ে যায়। এর জন্য দিনের বেলা যতটা পারবেন জানলা খুলে হাওয়া-বাতাস খেলিয়ে নেবেন। ড্যাম্প মানেই সেখানে জীবাণুর বাসা হওয়ার সম্ভাবনা।

৮) সর্দিকাশির হাত থেকে নিজেকে বাঁচাতে ভাল হার্বাল টি খান দিনে দু’বার। এছাড়া, সকালে খালি পেটে মধু দিয়ে তুলসিপাতাও চিবিয়ে খেতে পারেন।

৯) বৃ্ষ্টিতে ভেজা ছাতায় অনেক ধরনের নোংরা থাকে। সেটা গাছ থেকে পড়া পাতাও হতে পারে আবার বাতাসের ধুলো-ময়লা। বাড়িতে ঢুকে ডেটল জলে ছাতাটি ভাল করে ধুয়ে তবেই ঘরের ভিতরে মেলবেন, না হলে পরিষ্কার ঘরে ছাতার নোংরা জল পরে সেই রোগজীবাণু বাড়াবে।

১০) এই মৌসুমে রোজ না হলেও একদিন অন্তর ফিনাইল দিয়ে সারা বাড়ি মুছবেন। তবেই বাড়িঘর জীবাণুমুক্ত থাকবে।

Googleplus Pint
Anik Sutradhar
Posts 7017
Post Views 326