MysmsBD.ComLogin Sign Up

ফুটবল-ইউরো : হেরেও তৃপ্ত ইতালি; স্বস্তির নিঃশ্বাস জার্মানির

In ফুটবল দুনিয়া - Jul 04 at 7:08pm
ফুটবল-ইউরো : হেরেও তৃপ্ত ইতালি; স্বস্তির নিঃশ্বাস জার্মানির

১২০ মিনিট লড়াইয়ের পর সাডেন ডেথে জার্মানির কাছে হেরে ইউরো ২০১৬ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশীপের কোয়ার্টারফাইনাল থেকে বিদায় নিলো ইতালি। এমন হারের পরও তৃপ্ত ইতালি। নির্ধারিত সময়ে গোল করে ইতালিকে ম্যাচে ফেরানো লিওনার্দো বোনুচ্চি ম্যাচ শেষে দলের তৃপ্তির কথাই বলেছেন। আর দীর্ঘতম লড়াইয়ের পর ম্যাচ জিতে দল স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে বলে জানান জার্মানির প্রথম গোলের মালিক মেসুত ওজিল।

প্রথমার্ধ শেষে গোল শূন্য। তাতে বুঝা যাচ্ছিলো লড়াইটা জমজমাটই হয়েছে ইতালি ও জার্মানির ম্যাচে। এরপর দ্বিতীয়ার্ধ শেষে ১-১ সমতা। এই স্কোরও জানান দেয়, একে অপরকে ছাড়তে নারাজ দল দু’টি। এমন টান-টান অবস্থায় অতিরিক্ত সময়ে গোলই করতে পারেনি ইতালি ও জার্মানি। ফলে টাইব্রেকারে গড়ায় ম্যাচটি। সেখানেও যেন ম্যাচ না হারার পণ করে পেনাল্টি শুটে যায় দু’দল। এখানেও লড়াইয়ের আবহ, তাই সাডেন-ডেথেই নির্ধারিত হয় ম্যাচের ভাগ্য। কিন্তু ম্যাচের ফল পেতেও, চারটি করে শট নিতে হয়েছে দু’দলকে। চারটি শটে জার্মানির গোল করতে পারলেও, চতুর্থ শটে গোল না পেয়ে ম্যাচ হেরে কান্নায় বিদায় নেয় ইতালি।

তবে এই কান্নার মাঝেও ম্যাচ নিয়ে তৃপ্ত ইতালি। তেমনটাই বললেন বোনুচ্চি, ‘বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের সাথে ১২০ মিনিট লড়াই করেছি। এরপর টাইব্রেকারেও লড়াই করেছি। সাডেন ডেথে হেরেছি আমরা। হেরে গেলেও, মাথা উঁচু করেই বিদায় নিচ্ছি, এটা বলতে পারি। কারণ টাইব্রেকার হচ্ছে লটারি। ভাগ্যই এখানে আসল কাজ করে। এখানে সামন্য ভুল করা মানেই ভাগ্য সাথে না থাকা। আর ম্যাচের শেষদিকে ভাগ্য আমাদের সঙ্গ ছেড়ে দেয়। তাই হারতে হলো আমাদের। তবে এমন হারের পরও আমরা তৃপ্ত। নিজেদের খেলায় আমরা সকলেই খুশী।’

নির্ধারিত সময়ে গোল করে দলকে খেলায় ফেরালেও ট্রাইব্রেকারের ইতালির পক্ষে গোল করতে পারেননি বোনুচ্চি। সেই আক্ষেপটা অবশ্য বোনুচ্চিকে বড়সড়ভাবেই কষ্ট দিচ্ছে, ‘আমার নেয়া শট নয়্যার এভাবে বুঝে ফেলবে, আমি নিজেও বুঝতে পারিনি। আরো ভালোভাবে শটটা নেয়া উচিত ছিলো আমার।’

ইতালির বিপক্ষে বড় কোন টুর্নামেন্টে কখনওই জিততে পারেনি জার্মানি। সেই তথ্য মস্তিষ্কেই ঘুরপাক খাচ্ছিলো জার্মানদের। মস্তিষ্কে এমন তথ্য নিয়েই ইতালির বিপক্ষে খেলতে নামে তারা। তবে দীর্ঘ লড়াইয়ের পর নতুন ইতিহাস গড়তে পারায় স্বস্তির নিঃশ্বাস ওজিলের কন্ঠে, ‘অবশ্যই কিছুটা শঙ্কিত হয়েই খেলতে নেমেছিলাম আমরা। তবে বিশ্বাস ছিলো নির্ধারিত সময়েই গোল করে ম্যাচ জিততে পারবো। কিন্তু বোনুচ্চি গোল পরিশোধ করে দেয়ায়, চিন্তাটা অনেক খানি বেড়ে যায় । কারণ টাইব্রেকারে ভাগ্য কার পক্ষে থাকবে এটা বুঝার কোন উপায় নেই। যাই হোক ভাগ্য আমাদের পক্ষেই কথা বলেছে। দীর্ঘক্ষণ চিন্তায় থাকার পর এখন ম্যাচ জিতে খুবই ভালো লাগছে।’

Googleplus Pint
Anik Sutradhar
Posts 7066
Post Views 136