MysmsBD.ComLogin Sign Up

Search Unlimited Music, Videos And Download Free @ Tube Downloader

গ্যালাক্সি জে৫ : পারফরমেন্সে ভালো তবে ভোগান্তিও কম নয়

In মোবাইল ফোন রিভিউ - Jul 01 at 12:42am
গ্যালাক্সি জে৫ : পারফরমেন্সে ভালো তবে ভোগান্তিও কম নয়

প্রতিযোগিতামূলক বাজারের সাথে তাল মিলিয়ে নতুন নতুন হ্যান্ডসেট আনা অনেকটাই কঠিন হয়ে পড়ছে স্মার্টফোন কোম্পানিগুলোর জন্য। আর তাই পুরাতন হ্যান্ডসেটগুলোকে ফিচারে উন্নত করে আবারও বাজারে ছাড়ছে স্যামসাং। তারই ধারাবাহিকতায় বাজারে এসেছে গ্যালাক্সি জে৫ এর ২০১৬ সংস্করণের স্মার্টফোন। ব্যাটারি, ক্যামেরাতে ভালো হলেও ব্যবহারকারীকে কিছুটা ভোগান্তি পোহাতে হবে এটি ব্যবহারে। চলুন বিস্তারিত দেখে নেওয়া যাক।

এক নজরে স্যামসাং জে৫ (২০১৬)

১২৮০*৭২০ পিক্সেল রেজ্যুলেশনের ৫.২ ইঞ্চির অ্যামোলেড ডিসপ্লে
ফোরজি নেটওয়ার্কের সুবিধাসহ ডুয়াল সিম সমর্থন
১.২ গিগাহার্টজ স্ন্যাপড্রাগন ৪১০ চিপসেট
অ্যান্ড্রিনো ৩০৬ জিপিইউ
২ গিগাবাইট র‍্যাম
১৬ গিগাবাইট ইন্টারনাল স্টোরেজ
১২৮ গিগাবাইট পর্যন্ত মাইক্রোএসডি কার্ড ব্যবহারের সুবিধা
পেছনে ১৩ মেগাপিক্সেল ও সামনে ৫ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা
৩১০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের রিমুভেবল ব্যাটারি
ব্লুটুথ ৪.১ প্রযুক্তি
বক্সে যা পাওয়া যাবে

একটি হ্যান্ডসেট
ভালোমানের একটি ইয়ারফোন
একটি চার্জিং অ্যাডাপ্টর
একটি ইউএসবি ডেটা ক্যাবল
ইউজার ম্যানুয়াল
ওয়ারেন্টি কার্ড
সাদামাটা গড়ন

স্যামসাংয়ের এই হ্যান্ডসেটটি ডিজাইনে বেশ সাদামাটা। প্লাস্টিক বডির এই হ্যান্ডসেটটির ফ্রেমিংয়ে অ্যালুমিনিয়াম মেটাল ব্যবহার করা হয়েছে। ফ্রেমের এই অ্যালুমিনিয়ামের আবরণ কিছুদিন ব্যবহারে উঠে যেতে পারে। হ্যান্ডসেটটির ডানদিকের ফ্রেমে রয়েছে পাওয়ার লক/আনলক বাটন ও বামদিকে রয়েছে ভলিউম রকার।

ক্যামেরা, এলইডি ফ্ল্যাশ ও লাউডস্পিকার রয়েছে একদম পিছনে। লাউডস্পিকার পিছনে থাকায় ফোনটিকে টেবিল কিংবা বিছানার উপর রাখা অবস্থায় সাউন্ডের ব্যাঘাত ঘটতে পারে।

একদম নিচে রয়েছে চার্জিং পোর্ট ও ৩.৫ মিলিমিটার অডিও আউটপুট পোর্ট।

ডিসপ্লেতে ভালোই
ফোনটিতে ব্যবহৃত ১২৮০*৭২০ পিক্সেলের ৫.২ ইঞ্চির অ্যামোলেড ডিসপ্লেটির পিক্সেল ঘনত্ব মাত্র ২৮২ পিপিআই, ফলে ব্যবহারকারিরা কিছুটা আশাহত হতে পারেন। এই ফোনটি সর্বোচ্চ ৫টি আঙ্গুলের ছোয়ায় (মাল্টিটাচ) ব্যবহার করা যাবে। এটি অনেক স্মুথ। ডিসপ্লের ভিউয়িং অ্যাঙ্গেলে কোন সমস্যা না পাওয়া যায়নি।

স্টোরেজে সন্তুষ্টি
হ্যান্ডসেটটিতে পর্যাপ্ত স্টোরেজ সুবিধা দেওয়া হয়েছে। বিল্ট ইন হিসেবে থাকছে ১৬ গিগাবাইট জায়গা, যা মাইক্রোএসডি কার্ড ব্যবহার করে ১২৮ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। তবে অপারেটিং সিস্টেমেই প্রায় ৬ গিগাবাইট জায়গা ব্যবহৃত হবে।

রয়েছে ২ গিগাবাইটের র‍্যাম, যেখানে ১৫৯ মেগাবাইট রিজার্ভ হিসেবে থাকছে। এছাড়া সাধারণত সিস্টেম ও অ্যাপস ইনস্টলের কারণে প্রায় ৬৫ শতাংশ র‍্যাম পূর্ণ থাকে। ফলে কাজের ক্ষেত্রে কিছুটা ধীরগতির হতে পারে হ্যান্ডসেটটি।

কানেক্টিভিটি
স্মার্টফোনটি ফোরজি নেটওয়ার্ক সমর্থিত। রয়েছে দুইটি মাইক্রো সিম ব্যবহারের সুবিধা। এছাড়া ওয়াই-ফাই,ওয়াই-ফাই ডিরেক্ট, জিপিএস, এফএম রেডিও, ইউএসবি ২.০ প্রভৃতি কানেক্টিভিটি সুবিধা রয়েছে। পাশাপাশি থাকছে নেয়ার ফিল্ড কমিউনিকেশন (এনএফসি) সুবিধা।

কাস্টোমাইজড ইউজার ইন্টারফেইস
অ্যান্ড্রয়েড মার্শম্যালো ৬.০.১ এর উপর ভিত্তি করে গড়ে উঠা স্যামসাংয়ের নিজস্ব কাস্টোমাইজড ইউআই ডিজাইন। ফলে বাড়তি অনেক ফিচার রয়েছে হ্যান্ডসেটটিতে। মোটরসাইকেল ব্যবহারকারীদের সুবিধার্তে থাকছে এসবাইক মোড ও আল্ট্রা ডেটা সেইভিং মোড নামে আকর্ষনীয় দুটি ফিচার।

ব্যবহারকারীরা চাইলে হ্যান্ডসেটটিতে তার পুরাতন হ্যান্ডসেটের কনটেন্টগুলো আনতে পারবেন। ফলে কিছুটা ভোগান্তি থেকে বাঁচা যাবে।

পারফরমেন্স
ফোনটিতে কোয়ালকম এমএসএম৮৯১৬ মডেলের স্ন্যাপড্রাগন ৪১০ চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে। কর্টেক্স এ৫৩ আর্কিটেক্সারের ৬৪ বিট কোয়াড কোর প্রসেসরটির গতি ১.২ গিগাহার্টজ। ফোনটি সাধারন ব্যবহারকারীদের জন্য যথেষ্ট ভালো পারফরমেন্স দিলেও অ্যাডভান্সড লেভেলের ব্যবহারকারী কিংবা হাই গ্রাফিক্স গেইমারদের জন্য এর পারফরমেন্স পর্যাপ্ত নয়।

রয়েছে ভোগান্তি
ফোনটি প্রতিবার রিস্টার্ট নেওয়ার সময়ই উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের মতোই অ্যাপস অটোআপডেট ও ইনস্টল নেয়। ফলে প্রতিবার রিস্টার্টে প্রায় ৫ মিনিট সময় লাগে। এছাড়া অতিরিক্ত অ্যাপস ব্যবহারে হ্যান্ডসেটটি গরম হয়ে যায়।

এছাড়া অপারেটিং সিস্টেমে কিছুটা ঝামেলা থাকায় প্রায়ই এরর দেখায়। যেটি ব্যবহারকারীকে মাঝে মাঝেই ভোগান্তি দিতে পারে।

মাল্টিমিডিয়াতে বেশ
ফোনটির মিউজিক অভিজ্ঞতা বেশ ভালোই। এর সঙ্গে থাকা ইয়ারপিচটার মান সন্তোষজনক। ফোনটিতে ল্যাগ ছাড়াই ফুল এইচডি ভিডিও প্লেব্যাক হয়।


ক্যামেরাতে সেরা
পিছনে ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা ও সামনে ৫ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরায় তোলা ছবি ব্যবহারকারীকে দারুন অভিজ্ঞতা দেবে। এ ক্যামেরা দিয়ে ১৯২০*১০৮০ পিক্সেল রেজ্যুলেশনের ফুল এইচডি ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। ভিডিও কোয়ালিটিও বেশ ভালোমানের। রয়েছে ওয়াইড সেলফি, ইন্টারভ্যাল শর্ট, ফ্ল্যাশ, টাইমার, ইফেক্টসহ নানা সুবিধা।

ব্যাটারি
এতে ৩১০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। ব্যাটারি ব্যাকআপ খুবই ভালো। এক চার্জে দুইদিন চালানো যাবে। এছাড়া শুধুমাত্র কথা বললে কয়েকদিন পর্যন্ত ব্যাটারি ব্যাকআপ দেবে। তবে ডিভাইসটিকে দ্রুত চার্জ করার জন্য কুইক চার্জিং কিংবা ফাস্ট চার্জিং সুবিধা না থাকায় চার্জিংয়ে সময় বেশি লাগবে।

মূল্য
ফোনটির নিয়মিত দাম ২১ হাজার ৯০০ টাকা। তবে ঈদ উপলক্ষে এক হাজার টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত ক্যাশ ডিসকাউন্টের সুবিধা রয়েছে।

এক নজরে ভালো

পর্যাপ্ত স্টোরেজ
ভালো ব্যাটারি লাইফ
অ্যামোলেড ডিসপ্লে
এনএফসি সুবিধা
ভালোমানের ক্যামেরা

এক নজরে খারাপ

অপারেটিং সিস্টেমে সমস্যা
রিস্টার্ট নিতে প্রচুর সময় নেয়
ফাস্ট চার্জিং সুবিধা অনুপস্থিত
মাঝে মাঝে গরম হয়ে যায়

Googleplus Pint
Jafar IqBal
Posts 1521
Post Views 456