MysmsBD.ComLogin Sign Up

অখ্যাতদের এই রেকর্ডগুলো ভাঙতে পারেন নি কিংবদন্তিরাও!

In ক্রিকেট দুনিয়া - Jun 28 at 6:23pm
অখ্যাতদের এই রেকর্ডগুলো ভাঙতে পারেন নি কিংবদন্তিরাও!

অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, দক্ষিণ আফ্রিকা, ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশের মতো প্রথমসারির দেশের ক্রিকেটাররা অনেক রেকর্ডের অধিকারী। কিন্তু ছোট দেশের অনামি ক্রিকেটারদের দখলেও বেশ কিছু রেকর্ড রয়েছে যা অনেক ক্রিকেট প্রেমীই জানে না। পাঠকদের জন্য নিচে এমন কিছু রেকর্ড উল্লেখ করা হলো:

আরজে ট্রট, বারমুডা
বারমুডার এই ক্রিকেটার সবচেয়ে কম বয়সে টি-২০ আন্তর্জাতিক ম্যাচে দেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ২০০৮ সালে আইসিসি-র ওয়ার্ল্ড টি-২০ কোয়ালিফায়ারের একটি ম্যাচে ২০ বছর ৩৩২ দিন বয়সে এই নজির তৈরি করেছিলেন বারমুডার এই ক্রিকেটার।

খুররাম খান, সংযুক্ত আরব আমিরশাহি
২০১৪ সালের ৩০ নভেম্বর দুবাইতে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বয়স্ক ক্রিকেটার হিসাবে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শতরান করেন খুররাম খান। তখন তার বয়স ছিল ৪৩ বছর ১৬২ দিন। শ্রীলঙ্কার সসনৎ জয়সুরিয়ার রেকর্ড ভাঙেন তিনি।

নেদারল্যান্ডস ক্রিকেট দল
ক্রিকেট বিশ্বে প্রথমসারির দল হিসাবে এখনও স্বীকৃতি পায়নি নেদারল্যান্ডস। কিন্তু তাদের দখলে টি-২০ ক্রিকেটের একটি অনবদ্য রেকর্ড রয়েছে। ২০১৪ সালে বিশ্ব টি-২০ ক্রিকেটে আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে মাত্র ১৩.৫ ওভারে ১৮৯ রানের টার্গেট তুলে ফেলে নেদারল্যান্ডস। আর ১৮৯ তাড়া করতে গিয়ে ইনিংসে মোট ১৯টি ছয় মারেন নেদারল্যান্ডসের ব্যাটসম্যানরা। যে রেকর্ড এখনও ভাঙে নি।

রায়ান টেন দুশখাতে, নেদারল্যান্ডস
একদিনের ক্রিকেটে ন্যূনতম তিরিশটি একদিনের ম্যাচ এবং একহাজারের বেশি রান করেছেন এমন ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সবথেকে ভাল গড় রায়ান টেন দুশখাতের। ৩৩টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার পরেও দুশখাতের গড় ৬৭। বিরাট কোহলি থেকে শুরু করে এবি ডেভিলিয়ার্স, ব্যাটিং গড়ে সবাই দুশখাতের পিছনে। একদিনের ম্যাচে ১৫৪১ করেছেন দুশখাতে। পাঁচটি শতরান এবং ন’টি অর্ধশতরান রয়েছে দুশখাতের। স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের টেস্টে ৯৯.৯৪ ব্যাটিং গড় ছিল। ব্র্যাডম্যানের সঙ্গে দুশখাতের তুলনা হয়না, কিন্তু ব্যাটিং গড়ের নিরিখে তিনিও এই অসাধারণ রেকর্ডের অধিকারী।

মেহবুব আলম, নেপাল
টেস্টে অনিল কুম্বলে দশ উইকেট নিয়েছিলেন। আইসিসি অনুমোদিত ম্যাচে নেপালের এক ক্রিকেটারও দশ উইকেট নিয়ে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম তুলেছিলেন। ২০০৮ সালের ২৫মে ইউকে-র জার্সিতে আইসিসি-র পঞ্চম ডিভিশনের ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লিগের ম্যাচে মোজাম্বিকের বিরুদ্ধে দশ উইকেট নিয়েছিলেন এই বাঁ হাতি পেসার। ১৯ রানেই মোজাম্বিক অল আউট হয়ে যায়।-এবেলা

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Posts 3787
Post Views 570