MysmsBD.ComLogin Sign Up

নগ্ন অবস্থায় ঘুমানো কতটুকু স্বাস্থ্যকর?

In লাইফ স্টাইল - Jun 25 at 8:02pm
নগ্ন অবস্থায় ঘুমানো কতটুকু স্বাস্থ্যকর?

শরীরেকে সুস্থ রাখতে আমাদের প্রতিদিন কমপক্ষে ৬-৮ ঘন্টা ঘুমোনো দরকার | সারা পৃথিবী জুড়েই ঘুমোনোর কিছু গাইড লাইন আছে যা মেনে চলা অত্যন্ত দরকারী | বেশি ঘুমোনো যেমন শরীরের জন্য ভালো নয় আবার কম ঘুমোনো তো একেবারেই ভালো নয় |

কিন্তু অনেকেই এমন আছেন যাদের রাতে বার বার ঘুম ভেঙে যায় | পরীক্ষা করে দেখা গেছে বারবার ঘুম ভাঙার প্রধান কারণ হলো আমাদের পরনের পোশাক আশাক | বিশেষজ্ঞরা বলেন রাতে নগ্ন হয়ে ঘুমোনো দরকার | তাই জেনে নিন নগ্ন হয়ে ঘুমোনোর উপকারিতা :

খুবই আরামদায়ক : আপনি যদি নেকেড স্লিপার না হন‚ তাহলে নগ্ন হয়ে শোয়ার আইডিয়া আপনার কাছে স্বস্তিদায়ক হবে না | কিন্তু একবার অভ্যাস হয়ে গেলে দেখবেন এর থেকে আরামদায়ক আর কিছুই হতে পারে না | তাছাড়াও যেহেতু আপনি নগ্ন হয়ে ঘুমোবেন‚ আপনাকে জামাকাপড়ও কম কাচতে হবে | এবং রাতের পোশাক কেনার টাকাও বেঁচে যবে | এছাড়াও টাইট আন্ডার ওয়্যার এবং ব্রা-এর হাত থেকেও রক্ষা পাবেন‚ ফলে ঘুম অনেক ভালো এবং আরামদায়ক হবে |

ভালো ঘুম হবে : বেশির ভাগ ব্যক্তি যারা পোশাক পরে ঘুমোন‚ তাদের মাঝে মাঝেই ঘুমোনোর সময় জামা কাপড় জড়িয়ে যায় বা কিছুর সঙ্গে আটকে যায় | ফলে ঘুম ভেঙে যায় | এছাড়াও অনেকেই রাতে টি-শার্ট পরে ঘুমোতে পছন্দ করেন | কিন্তু তাদের ক্ষেত্রেও দেখা গেছে গেঞ্জি শরীরের সঙ্গে এমনভাবে জড়িয়ে যায় যে ঘুম ভাঙতে বাধ্য | কিন্তু যখন নগ্ন হয়ে ঘুমোবেন এইসব সমস্যার হাত থেকে রক্ষা পাবেন | এর ফলে আরো ভালো এবং গভীর ঘুম হবে |

স্কিন কোয়ালিটির উন্নতি ঘটে : সারা দিনে যদি একবারও সম্পূর্ণ নগ্ন হয়ে ঘুমোন তহলে আপনার শরীরে ফ্রেশ হাওয়া লাগবে | শুধু ত্বক নয় আপনার প্রাইভেট পার্টসেও হাওয়া লাগবে | যা খুবই ভালো | কারণ প্রায় সারাদিনই আমাদের প্রাইভেট পার্ট‚ বগল এবং পায়ের পাতা ঢাকা থাকে | এর ফলে এই জায়গাগুলোতে ঘাম জমতে থাকে | তাই শরীরের এই অঙ্গগুলিতে একবার অন্তত হাওয়া লাগনো উচিত | এর ফলে স্কিন ডিজিজের সম্ভাবনাও অনেকটা কমে যায় |

কর্টিসল নিয়ন্ত্রণে রাখে : আপনি যখন নগ্ন হয়ে ঘুমোন তখন আপনার শরীরের টেম্পারেচার ওপটিমাল রেঞ্জে থাকে‚ এর ফলে আপনার শরীর সঠিক মাত্রায় কর্টিসল তৈরি করে | অন্য দিকে জামাকাপড় পরে শুলে শরীর গরম হয়ে যেতে পারে | এর ফলে বেশি মাত্রায় কর্টিসল উৎপাদন হয়‚ এর ফলে উদ্বেগ‚ শরীরের ক্ষতি করে এমন খাবার খাওয়ার ইচ্ছা‚ ওয়েট গেইন হতে পারে | তাই কর্টিসল নিয়ন্ত্রণে রাখতে নগ্ন হয়ে ঘুমোনো ভালো |

মেলাটোনিন এবং গ্রোথ হরমোন নিয়ন্ত্রণে রাখে : নগ্ন হয়ে ঘুমোনোর ফলে আপনার স্লিপিং এনভায়রমেন্ট ৭০ ডিগ্রীর নীচে থাকে | এর ফলে আপনার শরীরী মেলাটোনিন এবং গ্রোথ হরমোন নিয়ন্ত্রণে থাকে | ফলে আপনার শরীরে বার্ধক্যের চিহ্ন আসতে দেরী হবে |

সূত্রঃ কালেরকন্ঠ

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Posts 4094
Post Views 672