MysmsBD.ComLogin Sign Up

Search Unlimited Music, Videos And Download Free @ Tube Downloader

'মিতু হত্যায় অংশ নেওয়া তিন যুবক শনাক্ত'

In দেশের খবর - Jun 25 at 10:44am
'মিতু হত্যায় অংশ নেওয়া তিন যুবক শনাক্ত'

পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যায় অংশ নেওয়া মোটরসাইকেল আরোহী তিন যুবককে শনাক্ত করেছে পুলিশ। তদন্তের স্বার্থে তাদের নাম-
পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না। এ ঘটনায় জড়িত অন্যদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

দ্রুততম সময়ের হত্যাকাণ্ডের পুরো রহস্য উদ্ঘাটন করা সম্ভব হবে বলে আশা করছেন তদন্তের সঙ্গে যুক্ত
কর্মকর্তারা। চট্টগ্রাম নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) দেবদাস ভট্টাচার্য শুক্রবার বিকেলে বলেন, ঘটনাস্থল থেকে সংগ্রহ করা সিসি টিভি ফুটেজ দেখে মোটরসাইকেল আরোহী তিন যুবককে শনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে। কেন, কী কারণে ওই তিন যুবক হত্যাকাণ্ডে
অংশ নিয়েছিলেন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কয়েক দিনের মধ্যে পুরো রহস্য উদ্ঘাটন করে গণমাধ্যমকে জানানো হবে। তিন যুবককে আটক করা হয়েছে কি না, এই প্রশ্নে তিনি বলেন, তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

৫ জুন সকালে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় চট্টগ্রামের জিইসি এলাকায় গুলি ও ছুরিকাঘাতে খুন হন মাহমুদা খানম। ঘটনার পর পুলিশ জানায়, জঙ্গি দমনে
বাবুল আক্তারের সাহসী ভূমিকা ছিল। এ কারণে জঙ্গিরা তার স্ত্রীকে খুন করে থাকতে পারে। হত্যাকাণ্ডের পর বাবুল
আক্তার অজ্ঞাতপরিচয় তিন ব্যক্তিকে আসামি করে মামলা
করেন। পরে পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুজনকে
গ্রেপ্তার করে। কিন্তু তারা হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত কি না, তা এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ।

সংগ্রহ করা ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, মাহমুদা খানম তার ছেলেকে নিয়ে ওআর নিজাম রোডের বাসা থেকে বের হয়ে জিইসি মোড়ের দিকে যাচ্ছেন। একই সময় রাস্তার অপর প্রান্তে জিন্স প্যান্ট ও চেক শার্ট পরা এক যুবককে মুঠোফোনে কথা বলতে দেখা যায়। তিনি রাস্তার সড়ক বিভাজক অতিক্রম করে মাহমুদার পিছু নেন এবং ঘটনাস্থলের (রাস্তার যে অংশে খুনের ঘটনা ঘটে) দিকে এগিয়ে যান।

ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, তিন যুবক প্রথমে মাহমুদা খানমকে মোটরসাইকেল দিয়ে ধাক্কা দেন। মোটরসাইকেলটিতে বসা (চালকসহ) তিন যুবকের মধ্যে
দ্বিতীয়জন মাহমুদার বুকে, হাতে ও পিঠে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করেন। তৃতীয়জন পিস্তল দিয়ে গুলি করেন। ৪০ থেকে ৫০ সেকেন্ডের মধ্যে এই হত্যাকাণ্ড ঘটে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশের
সহকারী কমিশনার মো. কামরুজ্জামান বলেন, কেন, কী কারণে এসপির স্ত্রীকে খুন করা হয়েছে তা বের করা হচ্ছে।
মোটরসাইকেল আরোহী তিন যুবকও শনাক্ত হয়েছে। হত্যার রহস্য উদ্ঘাটনের কাজ এখন শেষের দিকে রয়েছে।

Googleplus Pint
Bayzid Hosain
Posts 29
Post Views 57