MysmsBD.ComLogin Sign Up

‘হ্যান্ড অফ গডে’র কথা

In ফুটবল দুনিয়া - Jun 23 at 2:22pm
‘হ্যান্ড অফ গডে’র কথা

গোলটা হয়েছিল কিন্তু ‘পড়ে পাওয়া পাস’ থেকে! অর্থাৎ ম্যারাডোনাকে চূড়ান্ত পাসটি তার কোনো সতীর্থ ঠিকভাবে তুলে দেননি।

মাঝমাঠ থেকে ডান উইং ধরে পাঁচজনের পা ঘুরে বল যায় বাঁ উইংয়ের একটু উপরে, ম্যারাডোনার কাছে। পরিকল্পনা পরিষ্কার। সাইড চেঞ্জ করতে করতে ভেতরে ঢোকা। ম্যারাডোনোর কাছে বল আসার আগে পাসগুলো ছিল সোজাসুজি।

অর্থাৎ প্রতিপক্ষের সীমানার দিকে কেউ সেভাবে ঢুকছিলেন না। ম্যারাডোনার আগে পাঁচটি টাচ হয়, তার অধিকাংশ ওয়ানটাচ। কেউ বল বেশিক্ষণ রাখেননি। কিন্তু ঢুকতে হলে কাউকে তো ড্রিবল করে সামনে যেতেই হবে। এই কাজটা করেন ম্যারাডোনা।

বল ধরেই তিনজনকে কাটিয়ে এক সতীর্থকে পাস দেন। বা পায়ের আলতো টোকায়। ঠিক বক্সের সামনে। এই পাসটি মূলত ঠিক মতো দিতে পারেননি। কারণ যে পজিশনে ছিলেন, তাতে ওখানে ডান পা যাওয়া কথা। ডান পা দিলে হয়তো তার সতীর্থ বলটি ঠিক মতো পেতেন। কিন্তু তিনি তো আর ডান পা’কে ভালোবাসেন না।

তাই বা পা চালিয়ে দেন। আর তাতেই কাজের কাজ হয়ে যায়। বল একটু এদিক-ওদিক হয়ে যাওয়ায় ম্যারাডোনার ওই সতীর্থ ঠিকমতো কাট করাতে পারলেন না। কড়া মার্কিংয়ে ছিলেন। পেছনঘেঁষা ছিলেন ইংরেজ ডিফেন্ডার স্টিভ হজ। দ্রুত তিনি বলে যেতে চাইলেন। লাফানো বল ব্যাকভলির মাধ্যমে ক্লিয়ার করতে যেয়েই বিপদ ডেকে আনেন ওই ইংরেজ। বল উঠে যায় বক্সের আকাশে।

ম্যারাডোনার চেয়ে অনেক লম্বা গোলরক্ষক পিটার শিলটন বার ছাড়তে কয়েক সেকেন্ড দেরি করে ফেলেন। ম্যারাডোনোও বলে যেতে দেরি করেন। কিন্তু এই দুই ‘দেরি’র ভেতর অমরত্ব পেয়ে যায় ঐতিহাসিক ওই হাতটা!

১৯৮৬ সালের ২২জুন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপের ম্যাচে এই গোলটি করেছিলেন ম্যারাডোনা। গতকাল ছিল ত্রিশ বছর পূর্তি।

Googleplus Pint
Mizu Ahmed
Posts 4104
Post Views 179