MysmsBD.ComLogin Sign Up

ঘুমের সমস্যায় যা করবেন

In লাইফ স্টাইল - Jun 17 at 2:57pm
ঘুমের সমস্যায় যা করবেন

ঘুমের সমস্যা স্বাস্থ্যের জন্য একটি বড় ঝুঁকি৷ রাতে ভালো ঘুম না হলে পরের দিন খুব ক্লান্ত লাগে। সব কিছু কেমন যেন এলোমেলো মনে হয়৷ এমনকি অল্পতেই রাগ বা মেজাজও খারাপ হয়৷ শুধু তাই নয়, কাজে পুরো মনোযোগ না থাকায় হাতের কাজটাও শেষ করা যায় না। সে সময় নার্ভাসও লাগতে পারে৷ আর নার্ভাস হলে তার নেতিবাচক প্রভাব তো ঘুমের ওপর পড়বেই।

ঘুমের ট্যাবলেট থেকে সবধান!
রাতে ঘুম না এলে বা বার বার ঘুম ভেঙে গেলে, বিষয়টিকে অবশ্যই গুরুত্ব দিয়ে দেখতে হবে৷ কারণ রাতের পর রাত ঘুম না হলে শরীরে শক্তির মাত্রা কমে গিয়ে শরীর-মন দু’টোই দুর্বল হয়ে যায়৷ অনেকে তো উপায়ান্তর না দেখে নিয়মিত ঘুমের ট্যাবলেট সেবন করেন৷ কিন্তু এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া পরের দিনেও শরীরে থেকে যায় আর আস্তে আস্তে ট্যাবলেটের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ে মানুষ।

ভালো ঘুমের জন্য যা করবেন
প্রতিদিন একই সময়ে বিছানায় যেতে হবে এবং সন্ধ্যায় খানিকটা হাঁটতে পারলে তা ঘুম আসতে সাহায্য করবে৷ তাছাড়া বিছানায় যাওয়ার আগে এক গ্লাস গরম দুধে এক চামচ মধু মিশিয়ে পান করলেই দেখবেন ঘুম আসতে আর দেরি হবে না।

একটু দেরিতে বিছানায় যাবেন
যাঁদের রাতে এক বা দু’বার ওঠার অভ্যাস আছে, তাঁরা একটু দেরিতে বিছানায় যাবেন৷ এর ফলে হয়ত রাতে আর না-ও উঠতে হতে পারে।

দুপুরে ঘুম নয়!
দুপুরে না ঘুমালে স্বভাবিকভাবেই মানুষ রাতে একটু বেশি ক্লান্ত বোধ করে৷ তাই যাঁদের রাতে ঘুমাতে সমস্যা হয়, তাঁরা দিনেরবেলায় কখনো ঘুমাবেন না৷ বরং রাতে তাড়াতাড়ি বিছানায় যান, দেখবেন ঘুমও হবে।

ব্যায়াম
আমরা সবাই কম-বেশি জানি যে দিনে কোনোরকম কাজ-কর্ম বা শরীরের কোনো ব্যায়াম না করা হলে, রাতে মানুষ ক্লান্ত হয় না৷ এমনটা হওয়া খুবই স্বাভাবিক৷ তাই দিনেরবেলায় নিয়মিত ব্যায়াম করার চেষ্টা করতে হবে, কারণ ব্যায়াম উত্তেজনা এবং রিলাক্সেশনের মধ্যে সমতা আনে।

রাতের খাবার
ভালো ঘুমের জন্য রাতের খাবার হতে হবে অবশ্যই হালকা৷ তাছাড়া রাতে ক্যাফিনযুক্ত পানীয় বা অ্যালকোহলকে দূরে রাখতে হবে।

ঘুমের মধ্যে শরীরে যা ঘটে
ঘুম যদি গভীর হয় মস্তিষ্ক সারাদিনের ক্লান্তি মুছে দিয়ে ওজন কমাতে পারে৷ যথেষ্ট ঘুম হলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে৷ শুধু তাই নয়, পর্যাপ্ত ঘুম শরীরের অস্থিরতা কমাতেও সাহায্য করে।

নার্ভাস?
মানুষ নার্ভাস হলে মস্তিষ্ক অস্থির হয়ে পড়ে৷ ফলে বিপাক প্রক্রিয়া ভালোভাবে সম্পন্ন হতে পারে না৷ এতে করে শরীরে মেদ জমে৷ তাই চাপ বা স্ট্রেসকে দূরে রাখতে নিয়মিত খেলাধুলা, ব্যায়াম করা এবং হাসিখুশি থাকা অত্যন্ত প্রয়োজনীয় বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

Googleplus Pint
Anik Sutradhar
Posts 6704
Post Views 270